২৫৬১ বুদ্ধাব্দ ৯ আশ্বিন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ রবিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭ইংরেজী

ধর্মীয় অনুসঙ্গ

সীবলী পরিত্রাণের বাংলা

সীবলী পরিত্রাণের বাংলা ১* মহাজ্ঞানী বুদ্ধশিষ্যগণ সকলেই শ্রাবক পারমী পুর্ণ করিয়াছিন।সীবলী ও পারমী গুণতেজ সম্বলিত সেই পরিত্রাণ পাঠ করিতেছি।(বন্ধনী স্থিত বিষয়গুলীর অর্থ সুবোধ্য নহে) সম্ববত সীবলী গুণ প্রকাশক সাংকেতিক শব্দ। ২* সমস্ত স্বভাব ধর্মে চক্ষুষ্মান পদুমুত্তর নামক বুদ্ধ এই হইতে লক্ষকল্প পুর্বে জগতে আবির্ভুত হয়েছিলেন। ৩* সীবলী মহাস্থবির চতুর্ব্বিধ প্রত্যয়দি পাইবার যোগ্য মহাপুরুষ।তিনি দেব-মানবগনের,উত্তম ব্রহ্মাগণের ও নাগসুপর্ণগণের প্রিয়পাত্র ছিলেন।সেই পীণেন্দ্রীয় মহাপুরুষকে আমি নমস্কার করিতেছি। ৪* তিনি দেব-মানবগনের পূজিত,তাহারগুন প্রকাশক “নাসং…

মঙ্গল সূত্রে ৩৮ প্রকার মঙ্গলের কথা

মঙ্গল সূত্রে ৩৮ প্রকার মঙ্গলের কথা                                                                  মহামানব গৌতম বুদ্ধ গৃহী জীবনের ইহকাল পরকালের সুখ শান্তি এবং সমাজের সুন্দর পরিবেশ প্রতিষ্ঠিত করার লক্ষ্যে মঙ্গল সূত্রে ৩৮ প্রকার মঙ্গলের কথা ব্যক্ত করেছেন । এই মহামানব তথাগত বুদ্ধ দেব মনুষ্যের হিতসুখ... মঙ্গলার্থে ৩৮ টি মঙ্গলোপদেশ দেশনা করেন। অনেকে বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন ভান্তের দেশনায় শুনে থাকেন। শুধু শুনেছেন আসলে ৩৮ প্রকার মঙ্গলের কথাকি তা ভালো করে জানেন না। তবুও যাঁরা জানেননা      তাদের এবং…

জ্ঞানী পুরুষের দান

জ্ঞানী পুরুষের দান উজ্জ্বল বড়ুয়া বাসু কৈফিয়তঃ লেখাটা ভুলবশঃত বিশিষ্ট লেখিকা ইলা মুৎসুদ্দীর নামে প্রকাশিত হয়েছিল, লেখাটা উদীয়মান লেখক, সংগঠক উজ্জ্বল বড়ুয়া বাসু'র অনিচ্ছাকৃ্ত ভুলের জন্য দুঃখিত। বৌদ্ধধর্মে অনেক বড় একটা অংশ জুড়ে রয়েছে দানের মহিমা। তাই দান সম্পর্কে আমরা কমবেশী সকলেই জানি। আজ আমরা জ্ঞানী পুরুষের দান সম্পর্কেই জানব।সুমেধ তাপস দীপংকর বুদ্ধের কাছে অনাগতে সম্যক সম্বুদ্ধ হওয়ার আশীর্বাদ লাভ করে চিন্তা করেছিলেন- বুদ্ধগণের বাক্যের কখনোই অন্যথা হয়না, সূর্য উদিত…

সপ্ত মহাস্থান বিস্তৃতার্থ এবং বন্দনা

সপ্ত মহাস্থান বিস্তৃতার্থ এবং বন্দনা বুদ্ধত্ব লাভের পর বুদ্ধ বোধিবৃক্ষের পাশে সাতটি স্থানে ঊনপঞ্চাশ দিন অবস্থান করেন। সেসময় তিনি কখনো ধ্যানমগ্ন ছিলেন। কখনো পদচারণ করেছেন। কখনো তাঁর উদ্ভাসিত নবধর্ম সম্পর্কে চিন্তা করেছেন। বোধি বৃক্ষের চারিপাশে এ রকম সাতটি স্থান চিহ্নিত করা হয়েছে। এই সাতটি স্থানকে সপ্ত মহাস্থান বলা হয়। সেই সপ্ত মহাস্থান হলো- ১) বোধিপালঙ্ক : বুদ্ধ যে আসনে বসে বুদ্ধত্ব লাভ করেছেন তাকে বোধিপালঙ্ক বলা হয়। এই বোধিপালঙ্কই সমস্ত…

জয়মঙ্গল অষ্ট গাথার বিষয়বস্তু

জয়মঙ্গল অষ্ট গাথায় তথাগত মহাকরুণিক সম্যক সম্বুদ্ধের জীবনের আটটি ঘটনার কথা উল্লেখ রয়েছে। আমার এই ক্ষুদ্রতম জ্ঞানে আজকে অনেকদিন ধরে আপনাদের " জয়মঙ্গল অষ্ট গাথার " সংঘটিত আটটি ঘটনার বিবরণ ধারাবাহিক ভাবে উপস্হাপন করার মধ্যেদিয়ে ধর্মদানপূর্বক পূণ্য অর্জনের প্রয়াস ব্যক্ত করেছি। আজকের বর্ণনায়- জয়মঙ্গল অট্ঠগাথার বিষয়বস্তু সমুহ আলোচনা করব। সময় নিয়ে পড়ার অনুরোধ থাকল সবার প্রতি।   নবম গাথা-এতাপি বুদ্ধ-জয়মঙ্গল-অট্ঠগাথা,যো বাচকো দিনে দিনে সরতেমতন্দি।হিত্বাননেক বিবিধানি চুপদ্দবানি,মোক্খং সুখং অধিগমেয়্য নরো সপঞ্ঞো।…

জয়মঙ্গল অষ্ট গাথাঃ সত্যক সন্ন্যাসীকে পরাজয়ের কাহিনী

জয়মঙ্গল অষ্ট গাথায় তথাগত মহাকরুণিক সম্যক সম্বুদ্ধের জীবনের আটটি ঘটনার কথা উল্লেখ রয়েছে। আমার এই ক্ষুদ্রতম জ্ঞানে "জয়মঙ্গল অষ্ট গাথায়" বর্ণিত আটটি ঘটনার বিবরণ ধারাবাহিক ভাবে উপস্হাপন করার মধ্যেদিয়ে ধর্মদানপূর্বক পূণ্য অর্জনের প্রয়াস ব্যক্ত করছি। আজকের বর্ণনায়- সত্যক সন্ন্যাসীকে পরাজয়ের কাহিনী। সময় নিয়ে পড়ার অনুরোধ থাকল সবার প্রতি। যষ্ঠ গাথা- সচ্চং বিহায় মতি সচ্চক-বাদকেতুং, বাদাভিরো পিতমানং অতি-অন্ধভূতং। পঞ্ঞাপদীপজলিতো জিতবা মুনিন্দো, তন্তেজসা ভবতু তে জয়মঙ্গলানি। অনুবাদ : অসত্যভাষী মিথ্যাদৃষ্টিসম্পন্ন বাদ-বিবাদ পরায়ণ,…

পূজা প্রসঙ্গ

পূজা: উৎপন্ন কুশল এবং অনুৎপন্ন কুশল বৃদ্ধি করার জন্য এবং উৎপন্ন ও অনুৎপন্ন অকুশল বর্জনের জন্য আমরা অনেক কিছু করতে পারি। যার মধ্যে একটি হলো পূজা। পূজা হচ্ছে পূজনীয় ব্যক্তির প্রতি সম্মাণ প্রদর্শণ। দান আর পূজায় পার্থক্য হলো সম্মান প্রদর্শনের মধ্যে। আমরা যখন বুদ্ধকে দান দেই তখন শ্রদ্ধা থাকে, সম্মান থাকে কিন্তু ভিক্ষুক, তির্যক প্রানীদের দান দিলে সেই সম্মান আমরা তাদের প্রদর্শণ করি না। তাই সেটি দান হয় পূজা নয়।…

বুদ্ধ ও নিন্দুক

    বুদ্ধ ও নিন্দুক বুদ্ধদেবে নিন্দা করে নির্বোধ এক এসে , বুদ্ধ তখন মধুর সুরে কহেন তারে হেসে। তোমার নিন্দা তোমারি থাক নিলাম না’তো আমি , বন্ধু, আমি নিত্য তোমার রইবো হিতকামী।। ধ্বনির পিছে যেমন ছোটে প্রতিধ্বনি যত , ছায়া যেমন কায়ার পিছে ছুটছে অবিরত, বন্ধু জেনো সদায় যারা অপকর্ম করে, যন্ত্রণা ও তাদের পিছে তেমনি অনুসরে।। সাধুর যারা নিন্দা করে কাটায় তারা দুঃখে , আকাশেতে ফেললে থু থু…

নামসিদ্ধি জাতক

পুরাকালে বোধিসত্ত্ব তক্ষশিলা নগরে একজন বিখ্যাত আচার্য ছিলেন। পাঁচশতশিষ্য তাঁর বিদ্যাভ্যাস করত। এই সব ছাত্রদের মধ্যে একজনের নাম ছিল পাপক। অন্যান্য ছাত্ররা তাকে সব সময় ‘এস পাপক’, যাও পাপক বলত। তাতে পাপক চিন্তা করতে লাগল, আমার নাম অমঙ্গল সূচক। অতএব আমি অন্য একটি নাম গ্রহণ করব। পাপক তাই আচার্যের কাছে গিয়ে বলল, গুরুদেব, আমার বর্তমান নামটা অমঙ্গলসূচক। আমার অন্য একটি নাম রাখুন। আচার্য বললেন, যাও, তুমিজনপদে গিয়ে ঘুরে একটা মঙ্গল…

বুদ্ধবাণী হতে শিক্ষা

বুদ্ধবাণী হতে শিক্ষা । এমন কিছু কথা আছে যা মানুষের জীবনকে পাল্টে দিতে পারে, কিছু বাণী মানুষকে পরিপূর্ণ শুদ্ধ করে দিতে পারে, কিছু বাক্য অকাট্য সত্য হিসেবে চিরকাল ধাবিত হতে থাকে.... এরকম হাজারো কথা, বাণী বা বাক্য রয়েছে শুধু মানুষকে মানুষ হিসেবে শুদ্ধ সুন্দর হিসেবে পৃথিবীর বুকে মাথা উচু করে দাঁড়ানোর জন্য। মানব জীবন বড়ই দুর্লভ। অনেক পূণ্য প্রভাবে আমরা এই মনুষ্যজন্ম লাভ করেছি। পশু, পক্ষী, গরু,ছাগল কত প্রাণী এই…

কল্পতরু দানের পূণ্যফল বর্ণনা

কল্পতরু দানের পূণ্যফল বর্ণনা কল্পতরু যে বৃক্ষ হতে কল্পনানুযায়ী দ্রব্য পাওয়া যায়, তাকে কল্পতরু বলে। স্বর্গীয় কল্পতরুর বর্ণনা হতেই এই "কল্পতরু" দানের সৃষ্টি। কঠিন চীবর দানানুষ্ঠানের দিন আমরা সাধারণত এ কল্পতরু দান দিয়ে থাকি। বাঁশ, গাছ দিয়ে বৃক্ষের অনুরূপ মনোরম কাঠামো তৈরী করে, ফুল ও রঙ্গিন কাগজে সুসজ্জিত করতঃ তাতে ইচ্ছানুযায়ী দানীয় দ্রব্য, ভিক্খু অথবা বিহারের ব্যবহার্য্য ছোট বড় যাবতীয় দানীয় দ্রব্যে সুসজ্জিত করে এ কল্পতরু দান করা হয়। কল্পতরু…

বন্দনা ও সুত্র সমূহ

বন্দনা ও সুত্র সমূহ ভোরে ঘুম থেকে উঠে মুখ হাত ধুঁয়ে প্রথমে বুদ্ধ আসনের পানি, ফুল, মোমবাতি, আগরবাতি, সোয়াং তোলে দিয়ে বন্দনাদি করবেন। সন্ধ্যা সময়ওঅনুরুপভাবে বন্দনাদি করবেন। ত্রিরত্নবন্দনা বুদ্ধং বন্দামি, ধম্মং বন্দামি, সঙ্ঘং বন্দামি, অহং সব্বদা। দুতিযম্পি, ততিযম্পি। সকল চৈত্য বন্দনা বন্দামি চেতিযং সব্বং, সব্বট্ঠানেসু পতিট্ঠিতং। সারীরিক ধাতু মহাবোধিং বুদ্ধরুপং সকলং সদা’তি। দন্ত ধাতু বন্দনা একা দাঠ্ াতিদসপুরে, নাগপুরে অহু । একা গা›ধার বিসযে, একাসি পূন সিহলে। চতস্সো তা মহাদাঠা, নিব্বাণ…

বুদ্ধ গাথা এবং অন্যান্য

বুদ্ধ গাথা সমুহ ত্রিশরণ গাথা বুদ্ধের শরণ গত নরকে না যায়, নর লোক পরিহরি দেবলোক পায়। ধর্মের শরণ গত নরকে না যায়, নর লোক পরিহরি দেবলোক পায়। সংঘের শরণ গত নরকে না যায়, নর লোক পরিহরি দেবলোক পায়। ভূধর, কন্দর কিংবা জনহীন বন, শান্তি হেতু লয় লোকেসহস্র শরণ। ত্রিরতœ শরণ কিন্তু সর্ব দুঃখ ক্ষয়, লভিতে ইহারে সদা হও অগ্রসর। বুদ্ধের সপ্তবার গাথা গুরুবারে বুদ্ধাংকু মাতৃগর্ভে এল, শুক্রবারে শুভলগ্নে ভূমিষ্ঠ হইল। সোমবারে…

কঠিন চীবর দান নিয়মপ্রণালী

যে বিহারে এক বা একাধিক ভিক্খুসঙ্ঘ বর্ষাবাস সমাপন করে না, সে বিহারে কঠিন চীবর দান করা যায় না। ত্রিচীবর (সংঘাটি, উত্তরাসঙ্গ, অন্তর্বাস) অথবা ত্রিচীবরের মধ্যে যেকোনো একটি চীবর দিয়ে কঠিন চীবর দান করা যায়। কঠিন চীবর দান নিম্নোক্ত বিবিধ প্রণালীতে করা যায়। **প্রথম প্রণালী** যেই দিন কঠির চীবর দান করা হবে, সেই দিনের সূর্য্যোদয় হতে পরদিন সূর্য্যোদয়ের পূর্বক্ষণ পর্য্যন্ত এই ২৪ ঘন্টার মধ্যে তুলা কেটে, সুতা বানিয়ে, কাপড় বুনা, সেলাই…