২৫৬১ বুদ্ধাব্দ ৯ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ বৃহস্পতিবার, ২৪ অগাস্ট ২০১৭ইংরেজী

দৃষ্টিকোণ

রামুর সাম্প্রদায়িক সহিংসতাঃ দালানের মন্দির হয়ে ওঠা

দিনটি ছিল ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১২, হটাৎ করে জ্বলে উঠেছিল রামুর তেরটি বৌদ্ধ মন্দির আর বেশ কিছু বাড়ী-দোকান। গৃহহীন ভয়ার্ত মানুষ সেদিন পাকিস্তানী সেনাবাহিনীর অত্যাচারের কথা স্মরণ করেছিল। ঘটনার আকস্মিকতায় হতবিহবল বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা নিজের চোখ-কানকে যেন বিশ্বাস করতে পারছিলেন না- রামুতে এরকম কিছু ঘটতে পারে। শত বছরের শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের মাধ্যমে যে শান্তির পরিবেশ রামুতে গড়ে উঠেছিল তা যেন এক রাতের আগুনে পুড়ে ভস্ম হয়ে গেল। বিশ্বাসে চিড় ধরল সবার মনে। ফেসবুকে…

বড়ুয়া নেতাদের অন্তর্দলীয় কোন্দল

চট্টগ্রাম, ঢাকা এবং কোলকাতা মহানগরের প্রথম বৌদ্ধবিহার সমূহ বড়ুয়া বৌদ্ধদের নবজাগরণের কেন্দ্র ছিল এবং আজ ও বৌদ্ধধর্মের উন্নতির মানসে আমরা উক্ত বিহার সমূহের সম্মিলিত প্রয়াস কামনা করি। কিন্তু ঘরে আগুন (রামুর বড়ুয়াদের ঘরে আগুন),  বাইরে আগুন  (পরম পূজনীয় বুদ্ধগয়ায় দশটি বোমা বিস্ফোরণের) সংবাদে বৌদ্ধগণ কেমনে রাখে আঁখি বারি চাপিয়া ? আধুনিক বৈজ্ঞানিক যুগে কোর্ট কাছারির হাঙ্গামায় বড়ুয়াদের বৌদ্ধধর্ম পালনের নীতিমালা সপ্তঅপরিহানীয় ধর্মে বিদ্যমান। বাংলা বা চট্টগ্রামের ভাষায় উক্ত সপ্তঅপরিহানীয় ধর্ম…

সুখী দাম্পত্যের বিধান

পরিবারের যাবতীয় ভরণ-পোষণ, মাতা-পিতা বা শ্বশুর-শ্বাশুরীর সেবা যত্ন, সন্তাদের উপযুক্ত শিক্ষা-দীক্ষা, আত্মীয়-স্বজনের মনরক্ষা, ধর্মীয় ও সামাজিক কর্তব্য সব গুলোর সু-সমাধান করতে হয় প্রধানত স্ত্রীকে একমাত্র স্বামীর অথবা উভয়ের আয়ের উপর ভিত্তি করে। শুধু তাই নয়, ভবিষ্যতের রোগ-শোক, আপদ-বিপদ এ সবের মোকাবেলার জন্য এবং বার্ধক্য কালীন নিরাপত্তার জন্য অবশ্যই সঞ্চয় রাখতে হবে প্রতিদিনের আয়-ব্যয় হতে কিছু না কিছু। পরিবারে একসাথে বসবাসে পারষ্পরিক ভুল-ত্রুটি, গলদ-বিচ্যুতি অবশ্যই হবে। তাতে কোন সময় কেহ উত্তেজিত…

পার্বত্য চট্টগ্রাম, খ্রিস্টান মিশনারি ও বৌদ্ধধর্মের ভবিষ্যৎ

মাত্র বছর খানেক আগে পার্বত্য চট্টগ্রামের পরিস্থিতি নিয়ে সরকারি তরফ থেকে কিছু উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা প্রকাশ করা হয়েছিল। খোদ তথ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, ‘পার্বত্য চট্টগ্রাম নিয়ে বিদেশীদের কোন এজেণ্ডা থাকতে পারে, তাদের ধর্ম ও কৃষ্টির সুরক্ষা দেয়া রাষ্ট্রের কর্তব্য।’ অর্থমন্ত্রী এবং আইনমন্ত্রীও এ ব্যাপারে মুখ খুলেছিলেন। আইনমন্ত্রী সেখানে কর্মরত এনজিও এবং খ্রিস্টান মিশনারিদের কার্যকলাপের যে চিত্র তুলে ধরেছেন তা যে কোন দেশপ্রেমিক মানুষকে চিন্তায় ফেলবে।আমাদের দেশের এই অঞ্চলটির দিকে বিশেষ বিশেষ মহলের ‘নেক-নজর’ আছে…

বুদ্ধগয়ায় বিশ্বসংস্কৃতির সংহার

যে নামে যে উদ্দেশ্য বা যে আদর্শেই হোক, সভ্যতার বিরুদ্ধে বর্বরতার আঘাতই সন্ত্রাসবাদী আঘাত। সে আঘাতে ক্ষতি হয় অনিবার্যভাবে সভ্যতারই। কখনও কখনও অপুরনীয় ক্ষতি হয়। রোমের বর্বর বাহিনী মিশরীয়দের জব্দ ও বশ করার জন্য আলেকজান্দ্রিয়ার বিশাল গ্রন্থাগারটি পুড়িয়ে দিয়েছিল। যেমন ভারতে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়। সমগ্র বিশ্ব থেকে সংগৃহীত মহামূল্য গ্রন্থ ও পুঁথি পুড়ে ছাই হয়ে যায়। তাতে ক্ষতি কি শুধু মিশরীয় বা ভারতীয়দের হয়েছিল? ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছিল সমগ্র মানবজাতির।…

মহান বিজয় দিবসঃ প্রত্যাশা ও প্রাপ্তি

আজ ১৬ই ডিসেম্বর, মহান বিজয় দিবস। আজকের এ মহান বিজয় দিবসে মুক্তিযুদ্ধে আত্মত্যাগী দেশ প্রেমিকদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা এবং সকলের প্রতি রইল প্রাণঢালা শুভেচ্ছাভিনন্দন। ১৯৭১ সালের এই দিনে পৃথিবীর বুকে বাংলাদেশ নামের একটি স্বাধীন রাষ্ট্র ভূমিষ্ট হয়। আজ বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিন। পরাধীনতার শৃঙ্খল ভেঙ্গে মুক্তির দিন। আজকের এই দিনে বিশ্বের মানচিত্রে সৃষ্টি হয় নতুন একটি সার্বভৌম দেশ, যেটার নাম বাংলাদেশ। যা বাঙ্গালি জাতিকে পরিচয় করিয়ে দেয় সমগ্র বিশ্বপরিমন্ডলের…

বৌদ্ধ তীর্থ ভ্রমণ : প্রত্যাশা ও প্রাপ্তি

মহাকারুণিক তথাগত গৌতম বুদ্ধের আবির্ভাব ঘটে খৃষ্টপূর্ব ষষ্ঠ শতাব্দীতে। ঐ সময় হতে আরম্ভ করে খৃষ্টীয় দ্বাদশ শতাব্দী পর্যন্ত বৌদ্ধ দর্শনের ক্রমবিকাশ ঘটে। বৌদ্ধ কৃষ্টি, সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য মানব সভ্যতার ইতিহাসে একটি বিরাট সম্পদ। বিশ্বের মধ্যে ভারতভূমি একটি বিচিত্র শিক্ষা, সংস্কৃতি ও আধ্যাত্মিক ধ্যান সাধনার দেশ। মহাকারুণিক তথাগত গৌতম বুদ্ধ সুদীর্ঘ ৪৫ বছর ধর্ম প্রচারকালীন সময়ে ভারতের নানা স্থানে বর্ষাবাস যাপন, যাত্রা বিরতি এবং ধর্মোপদেশ প্রদান করেছিলেন। সে সমস্ত পবিত্র বুদ্ধভূমিকে…

মিথ্যার বেড়াজালে সত্য আক্রান্ত

ব্যাঘ্র শাবককে ব্যাঘ্রস্বভাব লাভের জন্য গুরুগৃহ, স্কুল-কলেজ কিংবা কোন প্রকার সাধনা-ভাবনার প্রয়োজন হয় না। স্বাভাবিক গতিতেই সে তা লাভ করে। কিন্তু প্রতিটা মানব সন্তানকে মনুষ্যত্ব লাভের জন্য সাধনা-ভাবনা ও উদ্যমশীল হতে হবে। তবে এটা সত্যি যে, মনুষ্যত্ব লাভের পথ কুসুমাস্তীর্ণ নয়। বরং, পিচ্ছিল ও কণ্ঠকাকীর্ণ। মনুষ্যত্বের বিকাশ ঘটিয়ে মানুষের মত মানুষ হতে হলে সেই পিচ্ছিল ও কন্টকাকীর্ণ দুর্গম পথকে দৃঢ়বীর্য পরায়ন হয়ে সমস্ত প্রকার অশুভ শক্তিকে পদদলিত করার মত অসীম…

ভিক্ষুণী প্রসঙ্গে অষ্টগুরুধর্ম নিয়ে বিতর্ক

সম্প্রতি শ্রদ্ধেয় ড.বরসম্বোধি ভান্তের ভিক্ষুণী প্রসঙ্গে একটি আর্টিকেল পড়লাম সৌগত পত্রিকায় ,যেটি দেখতে পেলাম ফেসবুক এর এক গ্রুপে । সেই পরিপেক্ষিতে কিছু বলার জন্য আমার এই লেখা ।বুদ্ধের ধর্মের বিশালতা মহাসাগরের চাইতে ও গভীর ,যদিও বা সুবিশাল সেই বিশাল জলরাশির কানাকড়ি ও আমার অধিগত হয় নি ,তথাপি শ্রদ্ধেয় ভান্তে যেহেতু বিনয়ের অষ্টগুরুধর্ম নিয়ে তথা ত্রিপিটকের একটি অংশকে উক্ত আর্টিকেলে প্রশ্নবিদ্ধ করেছেন সেহেতু এই প্রসঙ্গে একজন সদ্ধর্মপ্রাণ উপাসক হিসেবে আমার ও…

ধর্ম ও দারিদ্রতা

যেখানে ধর্ম আছে ওই খানে দারিদ্রতা থাকতে পারে না, আর যেইখানে দারিদ্রতা আছে, সেখানে ধর্মের চক্র সঠিকভাবে চালনা হয়না।যিনি আর্থিক কষ্টে ভোগে পরিবারের ভরন পোষণ করতে অসমর্থ হই, তখন তার চিত্ত সর্বক্ষণ বিক্ষিপ্ত থাকে, সে নিজে দুঃখী হই, সমাজের অন্যদেরকে দুঃখ প্রদান করে। গরিবতার এই অশান্তির মধ্যে ধর্ম ঠিকিয়ে রাখা অসম্ভব হয়ে পরে।বুদ্ধ মঙ্গলসুত্রে বলছেন '' বিভিন্ন ধরনের শিল্প শিক্ষার জন্য '' তাই যোগান-মূলক শিল্পকে দক্ষতার সাথে ট্রেনিং নিয়ে নিজেকে…

তারুণ্যের অগ্রায়নে ধর্মীয় শিক্ষার ভূমিকা

মহাকারুণিক বুদ্ধ বলেছেন মানব জন্ম অত্যন্ত দুর্লভ। মহাপুণ্যের ফলে কর্ম প্রভাবে মনুষ্য জন্ম লাভ হয়। সর্বজীবের শ্রেষ্ঠ জীব মানুষ। কারণ মানুষের মধ্যে জ্ঞান বুদ্ধি ও বিবেক আছে বলে মানুষকে শ্রেষ্ঠ জীব হিসাবে আখ্যায়িত করা হয়েছে। আর মানুষ যখন বিবেকবর্জিত কোন কাজ করে তখন সচেতন মহলের মনে দুঃখ জাগ্রত হয়। মানুষের অন্তরে লুকায়িত সুপ্ত বিবেককে সচেতন করার জন্য প্রয়োজন শিক্ষা। শিক্ষা বর্তমান প্রতিযোগীতার বিশ্বে আপন অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার প্রধান বাহন। শিক্ষিত…

শরীরের ক্লান্তি দূর করার এক ডজন টিপ্স

  ভোরের সূর্য উঠার সাথে সাথে আমরা যার যার কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়ি। বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত ব্যক্তিরা সময়মত ছুটে চলেন যার যার কর্মস্থলে। সারাদিনের কর্মব্যস্ততা শেষে শরীরে নেমে আসে ক্লান্তি। তখন শরীর চায় একটু বিশ্রাম। আবার বর্তমান অর্থনৈতিক দুরবস্থার কারণে সবাই পরিপূর্ণভাবে বিশ্রাম পেতে পারে না। চাকরীর পাশাপাশি অনেকে ব্যবসা কিংবা টিউশনি করে অতিরিক্ত আয়ের পথ বেছে নেয়, স্বচ্ছল জীবন যাপনের তাগিদে। তাই ক্লান্তি কাটাতে কাজের ফাঁকেও বিশ্রাম নেয়া যায়,…

রামু ট্র্যাজেডির এক বছর : বিচারের বাণী নিভৃতে কাঁদবে...?

রাষ্ট্রে যখন কোন অপরাধ সংঘটিত হয়, তখন তার জন্য আইনের শাসন আছে, তা যথাযথ প্রয়োগের ব্যবস্থা আছে। যখন কোন দুষ্কর্ম, নাশকতা, সন্ত্রাসী বা অন্য যেকোন অপরাধ কর্মকান্ড সংঘটিত হয়, তখন তাকে আইনের আওতায় এনে বিচারের বিধান রয়েছে। এ কথা আমরা সবাই জানি এবং বুঝি। কিন্তু অনেক কিছু অপরাধকর্মের বিচারের জন্য রাস্তায় দাবী জানাতে হয়, প্রতিবাদ-বিক্ষোভ-মানববন্ধনের মতো কর্মসূচি দিয়ে দিনের পর দিন বিচারের আশায় থাকতে হবে কেন? যদি দেখা যায় এটা…

ধর্ম পালন এবং সামাজিকতার নামে নির্বিচারে প্রাণীহত্যা আর কতকাল?

আমাদের বৌদ্ধ ধর্মে পঞ্চশীলের প্রথম শীল “প্রাণী হত্যা মহা পাপ”। আর যাই হোক বৌদ্ধ বিহারে বা যেকোন সংঘদান বা বৌদ্ধ সভা শুরু করার আগে আমরা পঞ্চশীল নিয়ে থাকি । বড়ুয়া বৌদ্ধরা সারা বছর পঞ্চশীল অনেক কষ্ট করে মানলেও বিয়ে ও বিয়ের অন্যান্য আনুষ্ঠানিকতা যেমন-বৌভাত, বেয়াইপাতা ইত্যাদিতে অথিতিদের জন্য খাবার আয়োজনের ক্ষেত্রে তা আর মানা হয় না । প্রায় সব ক্ষেত্রেই দেখা যায় জানতে চাওয়া হলে উত্তর আসে, “ফ্রিজের মাংস খাচ্ছি…

বিশ্বশান্তি প্যাগোডাঃ সমুজ্জ্বল সুবাতাস

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি বিশ্বশান্তি প্যাগোডা পাহাড় পবত টিলা বেষ্টিত পাহাড়ের পাশে সবুজ ঘন বীথিকার মাঝে কৃত্রিম ভাবেও গড়ে তোলা নৈসর্গিক ভিত্তি । সবকিছু যেন দৃষ্টি নন্দন এলাকা । এখানে শুধু প্রাকৃতিক বৈচিত্র্য ও বৈশিষ্ট্য প্রধান নয় । তিল তিল করে গড়ে তোলা পূণ্যস্থান, র্তীথস্থানতো বটে ।যা আজ সুন্দর সমাজ ব্যবস্থায় আধুনিক উপকরণের সাথে সর্ম্পকযুক্ত । বিশ্বশান্তি প্যাগোডাকে সামনে রেখে যে কথাগুলো না বললে নয় চন্দ্রনাথ শৈল শ্রেণীর পাদদেশে বর্তমানে যে…