২৫৬১ বুদ্ধাব্দ ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৭ইংরেজী
Clear

22°C

Chittagong

Clear

Humidity: 68%

Wind: 17.70 km/h

  • 23 Nov 2017

    Partly Cloudy 27°C 16°C

  • 24 Nov 2017

    Mostly Sunny 27°C 18°C

ইতিহাস ও ঐতিহ্য

ভারতবর্ষে বৌদ্ধ ধর্মের অবলুপ্তির কারণ

ভারতবর্ষে বৌদ্ধ ধর্মের অবলুপ্তির কারণ চিত্র ১ – সম্রাট অশোকের প্রতিকৃতি। লক্ষাধিক নিহতের কলিঙ্গের যুদ্ধের পরে যুদ্ধের ভয়াবহতা দেখে অনুতপ্ত সম্রাট অশোক বৌদ্ধ ধর্ম গ্রহণ করেন।  মুসলিমদের উপমহাদেশে আবির্ভাবের আগে থেকেই বৌদ্ধরা ক্ষমতাশালী হিন্দুদের প্রতাপে ছিলেন একেবারে কোণঠাসা। এমনকি গৌতম বুদ্ধের মৃত্যুস্থান বিহারের প্রতিবেশী বাংলাতেও হিন্দু ব্রাহ্মণ, শাসক ও নেতারা সাধারণ জনগণকে বশীভূত করে ফেলতে পেরেছিলেন। আসলে ইসলাম না এলে বৌদ্ধ ধর্ম হিন্দুদের দ্বারা ভারতবর্ষ থেকে পুরোপুরি নিশ্চিহ্নই হয়ে যেত। অন্ধ বৌদ্ধবাদের…

বুদ্ধগয়ার সপ্ত মহাস্থান : অনিমিষ চৈত্য : ২য় পর্ব

বুদ্ধগয়ার সপ্ত মহাস্থান : অনিমিষ চৈত্য : ২য় পর্ব বুদ্ধগয়ার সপ্ত মহাস্থানের ধারাবাহিক বিবরণের ২য় পর্বকৃতজ্ঞতার অন্যতম মহান নিদর্শন- অনিমিষ চৈত্য বোধিপালঙ্কে একটানা সাতদিন কাটানোর ফলে কিছু কিছু দেবতার মনে সন্দেহের উদয় হয়েছিল যে সিদ্ধার্থের কর্তব্য কাজ এখনো শেষ হয় নাই তাই স্থানের মায়া এখনো কাটাতে পারছেন না। তথাগত ইহা জানতে পেরে অষ্টম দিনে তাদের উদ্দেশ্যে যমক ঋদ্ধি প্রদর্শন করে বোধিপালঙ্ক ছেড়ে বজ্রাসনের অনতিদূরে উত্তর পূর্ব কোণে স্থিত হয়ে চিন্তা…

বুদ্ধগয়ার সপ্ত মহাস্থান : প্রথম মহাস্থান – বোধিপালঙ্ক : ১ম পর্ব

বুদ্ধগয়ার সপ্ত মহাস্থান : প্রথম মহাস্থান – বোধিপালঙ্ক : ১ম পর্ব বুদ্ধগয়ার সপ্ত মহাস্থানের ধারাবাহিক বিবরণের ১ম পর্ব প্রথম মহাস্থান – বোধিপালঙ্ক এই সেই স্থান যেখানে গৌতম বুদ্ধ বুদ্ধত্ব লাভ করে দিকে দিকে বিলিয়েছেন বহু জনের হিতের তরে বহু জনের সুখের তরে শান্তির, বিমুক্তির অমিয় সুধা। যে সুধা পান করে বিশ্বের অসংখ্য মানুষ এখনো বিমুক্তির পথ নির্দেশনা খুজে পায়। জেনে আশ্চর্যন্বিত হবেন এই পর্যন্ত যত সম্যক সম্বুদ্ধ উৎপন্ন হয়েছেন প্রত্যেকেই…

ভাঙ্গনের মুখে শান্তিময় বিহারসহ গহিরার বড়ুয়া পাড়া

ভাঙ্গনের মুখে শান্তিময় বিহারসহ গহিরার বড়ুয়া পাড়া জাহেদুল আলম, দৈনিক পূর্বকোণঃ মৎস্য প্রজননের ভান্ডার হলেও হালদা নদী রাউজান পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের পশ্চিম গহিরার বড়ুয়াপাড়াবাসীর জন্যে দুঃখ দীর্ঘদিনের। সেই দুঃখের পরিমাণ যতই দিন যাচ্ছে ততই বাড়ছে। এলাকার শতশত মানুষের এই দুঃখের নাম নদী ভাঙ্গন। হালদা নদীর করাল গ্রাসে (সর্তারঘাট থেকে বড়ুয়া পাড়া পর্যন্ত নদীর বাম তীরের এক কিলোমিটার অংশ) গত এক-দেড় দশকে কয়েকশ একর আবাদী অনাবাদীর অস্তিত্ব হারিয়ে গেছে। বড়ুয়া পাড়া…

১২শ বর্ষী মন্দিরে হিন্দু-বৌদ্ধ নিদর্শন : বৌদ্ধ মন্দিরকে হিন্দু মন্দিরে রূপান্তরিত করার নির্দশন

১২শ বর্ষী মন্দিরে হিন্দু-বৌদ্ধ নিদর্শন : বৌদ্ধ মন্দিরকে হিন্দু মন্দিরে রূপান্তরিত করার নির্দশন দিনাজপুরে মাটির ঢিবি খনন করে বৌদ্ধ মন্দিরকে হিন্দু মন্দিরে রূপান্তর করার প্রথম প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন আবিষ্কার করেছেন একদল গবেষক। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক স্বাধীন সেনের নেতৃত্বে আবিষ্কৃত এই মন্দির তৎকালীন বরেন্দ্র অঞ্চলে বৌদ্ধ ধর্ম চর্চার ওপর পরবর্তীকালের হিন্দু শাসকদের রাজনৈতিক ও ধর্মীয় আধিপত্যের সরাসরি নিদর্শন বলে ধারণা করা হচ্ছে।  খননকারীরা বলছেন, মন্দির দুটির নির্মাণকাল ৮ম থেকে ১১শ শতকের কোনো…

পুণ্যস্নানে রাখাইনদের নতুন বছর আবাহন : বৈসাবি'র আনন্দে ভাসছে পাহাড়ি জনপথ

পুণ্যস্নানে রাখাইনদের নতুন বছর আবাহন : বৈসাবি'র আনন্দে ভাসছে পাহাড়ি জনপথ দুই পক্ষের মধ্যে ব্যবধান মাত্র কয়েক ফুট। মাঝে একটি বাঁশ দিয়ে কৃত্রিম প্রতিবন্ধকতা। ড্রামে রাখা জল নিয়ে এক পক্ষ আরেক পক্ষের দিকে ছুঁড়ে মারছে। জল ছুঁড়ছেন তরুণরা, হেসে জবাব দিচ্ছেন তরুণীরা। আবার তরুণীদের ছোঁড়া জলে ভিজে একাকার হচ্ছেন তরুণরাও। দুই দলই কাকভেজা। বছরের একদিন আনন্দে ভেজা এদিন। উৎসবে মেতে ওঠা এ স্নানের নাম জলকেলি। পুরনো দিনের পাপ, কালিমা মোচন…

মুক্তিযুদ্ধে বৌদ্ধ ভিক্ষুদের অবদান চিরস্মরণীয়

মুক্তিযুদ্ধে বৌদ্ধ ভিক্ষুদের অবদান চিরস্মরণীয় ডিসেম্বর মাস বিজয়ের মাস। ১৬ই ডিসেম্বর বিজয় দিবস।’৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধ বাংগালীদের জন্য স্মরণীয় এবং ত্যাগের মহিমায় মহিমান্বিত একটা ঘটনা। লাখো শহীদের আত্মত্যাগ ও লাখো মা-বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে অর্জিত হয় সবুজের মাঝে রক্ত সূর্যখচিত একটি পতাকা, একটি স্বাধীন সার্বভেৌম দেশ বাংলাদেশ।তাই মুক্তিযুদ্ধ আমাদের গর্ব, আমাদের প্রেরণার উৎস।একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধে বৌদ্ধ ভিক্ষুরা প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে কাজ করে গেছেন।যাদের জন্য আজ আমরা গর্বিত এবং অনুপ্রাণিত। প্রয়াত মহাসংঘনায়ক…

তক্ষশীলা : বিশ্বের সর্বপ্রাচীন বিশ্ববিদ্যালয়ের আশ্চর্যময় কিছু কথা

তক্ষশীলা : বিশ্বের সর্বপ্রাচীন বিশ্ববিদ্যালয়ের আশ্চর্যময় কিছু কথা তক্ষশীলা হলো প্রাচীন ‘গান্ধার’ রাজ্যের রাজধানী যার অবস্থান ছিল বর্তমান পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদ এবং পাঞ্জাবের রাওয়ালপিন্ডি থেকে প্রায় ৩২ কিলোমিটার (২০ মাইল)উত্তর-পশ্চিমে; যা গ্রান্ড ট্রাঙ্ক রোড থেকে খুব কাছে। এটি পাকিস্তান সৃষ্টির আগ পর্যন্ত ভারতবর্ষের অর্ন্তগত ছিল। ৩টি সুপরিচিত বানিজ্যিক রুটের সম্মিলন স্থান হওয়ায় রাজা ভরত ও তার স্ত্রী মান্দভির পুত্র তক্ষের নামে প্রতিষ্ঠিত এই তক্ষশিলা শিক্ষা ও বানিজ্যকেন্দ্র হিসাবে গড়ে ওঠে আবার তক্ষশীলার…

বাংলা সাহিত্যে বৌদ্ধচর্চার পটভূমি ও প্রাসঙ্গিক তথ্য

বাংলা সাহিত্যে বৌদ্ধচর্চার পটভূমি ও প্রাসঙ্গিক তথ্য (পূর্ব প্রকাশিতের পর) বাঙলা ও বাঙালির ইতিহাস সু-প্রাচীন। সে ইতিহাস কত বছরের পুরাণো তা নিয়ে পণ্ডিতদের মধ্যে মতভেদ ও বিস্তর। এ বিচারে বাংলাগানের ইতিহাসের সুপ্রাচীনত্ব নিয়েও মতভেদের অন্ত নেই। শাস্ত্রী মহোদয়ের চর্যাপদ আবিষ্কারের ফলে গবেষকেরা এ বিষয়ে একটি সুনির্দ্দিষ্ট গাইড লাইন পেয়েছিলেন। এ প্রসঙ্গে গবেষক ও সাংবাদিক অরুণদাশ গুপ্ত বলেন- “হাজার বছরের পুরাণ বাংলা ভাষায় বৌদ্ধগান ও দোহা’র নামক গ্রন্থটি প্রকাশিত হবার পর…

বাংলা সাহিত্যে বৌদ্ধচর্চার পটভূমি ও প্রাসঙ্গিক তথ্য

বাংলা সাহিত্যে বৌদ্ধচর্চার পটভূমি ও প্রাসঙ্গিক তথ্য ৭৫০ থেকে ১১৬০সাল পর্যন্ত পাল বৌদ্ধরাজারা চারশত বৎসর বাংলা শাসন করেন। তাঁদের শাসনকালে বাঙালির নব যাত্রা শুরু হয়। ধর্ম, শিল্প, সাহিত্য ও শিক্ষায় এক যুগান্তকারী পরিবর্তন ঘটে। তাঁদের সম্যক পৃষ্ঠপোষকতায় গড়ে ওঠা নালন্দা, বিক্রমশীলা, ময়নামতি, পাহাড়পুর, সোমপুর ওদন্তপুর প্রভৃতি মহাবিহারকে ঘিরে বাঙালির মহিমা বৌদ্ধজগতে প্রসিদ্ধি লাভ করে। শীলভদ্র, শান্তিরক্ষিত, পদ্মসম্ভব, কমলশীল, দীপংকর শ্রীজ্ঞান, চন্দ্রগোমিন, অভয়কর গুপ্ত প্রভৃতি বাঙালির পরম গর্বের ধন। প্রাচীনযুগ তথাগত…

বুদ্ধধর্মের প্রভাব : প্রেক্ষিত ইন্দোনেশিয়া

বুদ্ধধর্মের প্রভাব : প্রেক্ষিত ইন্দোনেশিয়া খ্রিষ্টপূর্ব ষষ্ঠ শতাব্দী মানবসভ্যতার ইতিহাসে এক অবিস্মরণীয় শতাব্দী। রাজকুমার সিদ্ধার্থ গৌতমের জন্ম,সংসারত্যাগ,ষড়বৎসর কঠোর তপস্যা,বুদ্ধ জ্ঞানপ্রাপ্তি এবং মানবকল্যাণে তাঁর লব্ধজ্ঞানের সদ্ধর্মবাণীর প্রচার ও প্রসার সত্যিই অভিনব এবং বিস্ময়কর বিষয়। মানবতা,মানবপ্রেম এবং মনুষ্যত্বের নবতম জাগরণের মাধ্যমে গৌতম বুদ্ধ সমগ্র ভারতবর্ষের মধ্যে অভূতপূর্বভাবে সাড়া জাগিয়ে ছিলেন। আধ্যাত্মিক জ্ঞানসাধনা এবং মানবতাবাদের উন্মেষে রাজা,মহারাজা,শ্রেষ্ঠী,ধনী,মধ্যবিত্ত,সাধারণ এবং অতিসাধারণ বিশেষত সর্বস্তরের মানুষের মধ্যে এই শতাব্দীতে ভারতের পারিবারিক,সামাজিক,রাষ্ট্রীয় ও ধর্মীয়ভাবে পরিবর্তন সূচিত হয়। এ…

আমরা ফানুস কেন উড়াই? এর ইতিহাস কি?

আমরা ফানুস কেন উড়াই? এর ইতিহাস কি? আমরা প্রতি বছর প্রবারণা পূর্ণিমার দিন মহাসমারোহে ফানুস উড়াই। খুবই আনন্দ আয়োজন করি এই ফানুস নিয়ে। বিশেষ করে বেৌদ্ধ সমাজের তরুণদের মধ্যে হিড়িক পড়ে যায় কে কতটা বানাতে পারবে? অথচ আমরা জানিনা কেন ফানুস উড়াই? তাই আজকের আয়োজন ফানুস নিয়ে কিছু কথা ---- চারটি নিমিত্ত দর্শন করে রাজকুমার সিদ্ধার্থ আষাঢ়ী পূর্ণিমা তিথিতে সংসার ত্যাগ করে ছিলেন। তাঁর নবজাত পুত্র রাহুলা আর প্রিয়তমা স্ত্রী…

ভারতবর্ষে বৌদ্ধধর্মের প্রসার ও বিলুপ্তির ইতিহাস

ভারতবর্ষে বৌদ্ধধর্মের প্রসার ও বিলুপ্তির ইতিহাস মধ্যযুগে সমতটে বৌদ্ধধর্মের যে বিকাশ ও প্রসার ঘটেছিল সে ইতিহাস আজও অনেকটা তমসাচ্ছন্ন। এর মূল কারণ হল এতদঅঞ্চলের সমসাময়িক আকর ইতিহাসের অভাব। তথাপি ঐতিহাসিক তথ্যের এ শূন্যতা অনেকটাই পূরণ হয়েছে সমসাময়িক সাহিত্য, বিদেশি পর্যটকদের ভ্রমণ বৃত্তান্ত, উৎখননকৃত স্থাপত্যনিদর্শন, শিলালেখ, তাম্রলিপি, ধাতব মুদ্রা, হিন্দু-বৌদ্ধ মূর্তি ও উৎকীর্ণ টেরাকোটা ফলকের মাধ্যমে। ঐতিহাসিকগণ একমত যে, মধ্যযুগে সমতট ছিল বৌদ্ধ ধর্মের শেষ আশ্রয়স্থল। সমতটের ভৌগোলিক অবস্থান নিয়ে ঐতিহাসিকদের…

শ্রীলংকায় বুদ্ধের পবিত্র দন্ত ধাতু মন্দিরের উৎসবের ইতিকথা

শ্রীলংকায় বুদ্ধের পবিত্র দন্ত ধাতু মন্দিরের উৎসবের ইতিকথা মন্দিরের চারপাশে পাহাড় ঘেরা পরিবেশ। সুন্দর সুশীতল মনোরম পরিবেশ। প্রতিদিন নানান আয়োজন থাকলেও প্রতি বছরের একটি নির্ধারিত সময় মহাসমারোহে সপ্তাহ ব্যাপি ধাতুমন্দিরে উৎসব হয়। স্থানীয় ভাষায় বলা হয় এসাল প্যারাহারা (Kandy Esala Perehera) । যখন কোন মহামারি কিংবা অনাবৃষ্টি হয়, তখন মাহামারি দুর করতে দন্তধাতুকে উন্মুক্ত করা হয়। একসময় শ্রীলংকায় নাকি অনাবৃষ্টি হয়েছিল, অনাবৃষ্টির কারনে মহামতি মারের উপদ্রব বেড়ে গিয়েছিল। মহামারির কারনে…

চট্টগ্রামের লোকসাহিত্য ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য : এর সংগ্রহ ও সংরক্ষণে প্রাতিষ্ঠানিক উদ্যোগ

চট্টগ্রামের লোকসাহিত্য ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য : এর সংগ্রহ ও সংরক্ষণে প্রাতিষ্ঠানিক উদ্যোগ প্রস্তাবনা : একটা জাতি বা সমাজের সার্বিক জীবনধারার বিচিত্র প্রকাশই সংস্কৃতি। আর লোকসাহিত্য ও সংস্কৃতি বলতে আমরা বুঝি লোকজ জীবনকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠা একটি নিখুঁত চিত্র, যা জীবনের হাসি কান্না, গৌরব গাঁথা ও সুখ-দুঃখের বিচিত্র প্রকাশ। লোকসাহিত্য গ্রাম প্রধান আবহমান বাংলার মৌখিক সাহিত্য। শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে খেটে খাওয়া মানুষের মুখ থেকে মুখে, প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে টিকে…