২৫৬১ বুদ্ধাব্দ ৯ আষাঢ় ১৪২৪ বঙ্গাব্দ শুক্রবার, ২৩ জুন ২০১৭ইংরেজী
বুধবার, 09 সেপ্টেম্বর 2015 01:00

বুদ্ধগয়ার সপ্ত মহাস্থান : রত্নচংক্রমণ : ৩য় পর্ব

লিখেছেনঃ উজ্জ্বল বড়ুয়া বাসু

বুদ্ধগয়ার সপ্ত মহাস্থান : রত্নচংক্রমণ : ৩য় পর্ব

বুদ্ধগয়ার সপ্ত মহাস্থানের ধারাবাহিক বিবরণের ৩য় পর্ব : রত্নচংক্রমণ

আমরা অনেকে বন্দনা করি- পঠমং বোধিপালঙ্কং, দুতিযং অনিমিসম্পিচ, ততিযং চংক্রমণ সেট্ঠং...... বন্দে তং বোধিপাদপং। এখানে তৃতীয় নম্বরে বুদ্ধের চংক্রমণ করার সেই স্থানটিকেই আমরা বন্দনা করি।
উল্লেখিত ছবিটি সেই চংক্রমণের স্থানকেই নির্দেশ করে। এই স্থানটিকে চিহ্নিত করে সেখানে পাকা করে উঁচু করে রাখা হয়েছে। আর বুদ্ধের চংক্রমণের পদবিক্ষেপ সমূহকে সেই পাকা স্থানের উপরে আলাদাভাবে চিহ্নিত করে রাখা হয়েছে। বুদ্ধগয়ার মূলমন্দিরের দেওয়ালের সাথে প্রায় লাগানো উত্তর পাশেই এটির অবস্থান। শ্রীলংকানরা এই স্থানটিকে ফুল দিয়ে সাজিয়ে ছবির মতো করে পূজা করে। তথাগত বুদ্ধ বুদ্ধত্ব লাভের পর তৃতীয় সপ্তাহ এই স্থানে চংক্রমণ করতে করতে কাটিয়ে দেন। আর তাই এই স্থানটি রত্নচংক্রমণ নামে অভিহিত।
চংক্রমণ কি? অনেকের মনে এই প্রশ্ন জাগতে পারে বিশেষ করে যারা বিদর্শন অনুশীলন সম্পর্কে জ্ঞান রাখেন না তাদের ।বুদ্ধ মুক্তিলাভের জন্য যে বিদর্শন অনুশীলনের কথা বলেছেন, সেই বিদর্শন অনুশীলন করতে গেলে চারটি ঈর্যাপথ রয়েছে। সেগেুলো হচ্ছে- বসা, দাড়ানো, হাঁটা এবং শোয়া। অনেকে মনে করেন ধ্যানানুশীলন শুধুমাত্র বসেই করতে হয় ধারণটা ভূল। বুদ্ধ প্রতিটি মুহুর্তে স্মৃতিমান থাকার কথা উল্লেখ করেছেন। আর প্রতি মুহুর্তে স্মৃতিমান থাকতে গেলে আপনি বসে, দাড়িয়ে, হেটে কিংবা শুয়ে শুয়েও বিদর্শন অনুশীলন করতে পারেন।


যারা অন্তত একবার বিদর্শন অনুশীলন কিভাবে করতে হয় তা শিখেছেন। তারা দীর্ঘ যানজটের সময় কিংবা দূর পথের যাত্রার ক্ষেত্রে অলস সময় না কাটিয়ে গাড়িতে বসে বসেও ধ্যানানুশীলন করতে পারেন। কারণ বুদ্ধ বলেছেন ক্ষণমুহুর্তের জন্যও বিদর্শন চর্চা অতি উত্তম। যাই হোক যে কথা বলছিলাম চংক্রমণের কথা- উপরে উল্লেখিত চার প্রকার ঈর্যাপথের মধ্যে হাঁটাই হচ্ছে চংক্রমণ করা।
চংক্রমণ করার পাঁচটি গুণ-
১) দীর্ঘ রাস্তা গমন করিতে সমর্থ হয়
২) ধ্যান-ক্ষম হয়
৩) নীরোগ হয়
৪) ভুক্ত দ্রব্যাদি উত্তমরুপে পরিপাক হয়
৫) চংক্রমণ করিতে করিতে লব্দ সমাধি চিরস্থায়ী হয়।
কলেবর বৃদ্ধির ভয়ে আজ এখানেই ইতি টানছি। সাথে একটা অনুরোধ রইল, অন্তত একবার ধ্যান কোর্সে অংশ নিয়ে ধ্যানানুশীলনের পদ্ধতি শিখে নিন, তাহলে ঘুমাতে গেলে ঘুম না আসা পর্যন্ত অথবা গাড়িতে বসেও ধ্যানচর্চা করে দূর্লভ মনুষ্য জীবনকে সার্থক করার পথে এগিয়ে যান।
তথ্য উৎস-১) মহামানব গৌতম বুদ্ধ- ড. সুকোমল চৌধুরী সম্পাদিত
২) বিশুদ্ধিমার্গ ও বৌদ্ধ সাধনা- ভদন্ত প্রজ্ঞাবংশ মহাথের সম্পাদিত

Courtesy: Soshanvumi Meditation Practiciing Center.Karaiyanagor

Additional Info

  • Image: Image