২৫৬১ বুদ্ধাব্দ ১৭ বৈশাখ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ রবিবার, ৩০ এপ্রিল ২০১৭ইংরেজী

বৌদ্ধ ধর্ম ও দর্শন

জন্মান্তর

জন্মান্তর র্কমফল বিদ্যমান থাকলেই  পূনর্জন্ম সংঘটিত হতে  থাকবে, কারণ জীব অদৃশ্য কর্মশক্তির দৃশ্যমান  প্রকাশ মাত্র ।  মৃত্যু এই জীবন প্রবাহের  সাময়িক বিলুপ্তি ব্যতীত আর কিছুই নয়।  মৃত্যু জীব বলে অভিহিত সত্ত্বার চির বিনাশ নয়। জীবন প্রবাহ রুদ্ধ হয়েছে, কিন্তু কর্মফল তখনও তার অখন্ড প্রভাব বজায় রেখেছে। কারণ পরিবর্তনশীল দেহের বিনাশে অপরিবর্তনীয় কর্মফল মৃত্যুক্ষণে সৃষ্ট চিত্তের সমন্বয়ে  পরবর্তী জীবনের নব বিজ্ঞানের সূচনা করে।                 অবিদ্যা  এবং তৃষ্ণার  মূলে…

ফাল্গুনী পূর্ণিমার তাৎপর্য : তথাগতের শাক্যরাজ্যে গমন ও জ্ঞাতি সম্মেলন

ফাল্গুনী পূর্ণিমার তাৎপর্য : তথাগতের শাক্যরাজ্যে গমন ও জ্ঞাতি সম্মেলন মহাকারুণিক তথাগত ভগবান বুদ্ধ রাজা বিম্বিসার নির্মিত বেণুবন বিহারে অবস্থান করছেন। বহুজনের হিতের জন্য বহুজনের মঙ্গলের জন্য ধর্মসুধা বিতরণ করে চলেছেন। রাজা শুদ্ধোধন ৭ বছর ধরে পুত্রকে দেখেননি সুতরাং তিনি পুত্রকে দর্শনের জন্য অত্যন্ত ব্যাকুল হয়ে উঠলেন। রাহুলের বয়স এখন সাত বৎসর। সংসার ত্যাগ করে যাওয়ার পর থেকে পিতাকে দেখার সৌভাগ্য তার হয়নি। রাজা তার একজন মন্ত্রীকে ১০০০ লোকসহ বুদ্ধকে…

পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় বুদ্ধের নীতিকথা

পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় বুদ্ধের নীতিকথা ৪৬০ কোটি বছর আগে জন্ম নেয়া বর্তমান পৃথিবীটা অনিন্দ্য সৌন্দর্যে ভরপুর। সাগর, গিরি, অরণ্য, বৈচিত্র্যময় ভূ-ভাগ এসব মিলে বিভিন্ন প্রাকৃতিক সম্পদের সুশৃঙ্খলতার বদৌলতে অপরাপর গ্রহ হতে পৃথিবী নামক এ গ্রহটি মানুষ তথা জীব বসবাসের জন্য একমাত্র উপযোগী গ্রহ বলে বিজ্ঞানের সিদ্ধান্ত। (বৌদ্ধ ধর্ম মতে কিন্তু একত্রিশ প্রকার লোকভূমি বিদ্যমান। যেমন মনুষ্য ভূমি, তির্যক বা পশু পাখি ভূমি, নরক, অসুর ও প্রেতভূমি, স্বর্গলোক ছয়টি, ষোল প্রকার…

বুদ্ধের মহাপরিনির্বাণ ও মাঘী পূর্ণিমার তাৎপর্য

বুদ্ধের মহাপরিনির্বাণ ও মাঘী পূর্ণিমার তাৎপর্য মাঘী পূর্ণিমা দিবসে মহাকারুণিক বুদ্ধ বৈশালীতে  পিন্ডাচরণ শেষে আনন্দকে নিয়ে বৈশালীর অদূরে চাপাল চৈত্যে এসে উপস্থিত হয়ে তাঁর জন্য বি¯তৃত আসনে উপবেশন করতঃ আনন্দকে লক্ষ্য করে বললেন, ”হে আনন্দ,! রমণীয় বৈশালী, রমণীয় উদেন চৈত্য, রমণীয় গৌতমক চৈত্য, রমণীয় সত্ত্স্ব চৈত্য, রমণীয় বহুপুত্র চৈত্য, রমণীয় আনন্দ চৈত্য,  রমণীয় চাপাল চৈত্য। হে আনন্দ, যে কারো চারি ঋদ্ধিপাদ ভাবিত বর্ধিত, বহুলীকৃত, রথগতি সদৃশ্য, অনর্গল অভ্যস্থ বাস্তুভূমি সদৃশ্য প্রতিষ্ঠিত অধিষ্ঠিত…

সিগালোবাদ সুত্র এক পরিপূর্ণ গৃহী বিনয়

সিগালোবাদ সুত্র এক পরিপূর্ণ গৃহী বিনয় ভূমিকা ত্রিপিটকের সূত্রপিটকান্তর্গত দীর্ঘ নিকায়ের শৃগালোবাদ সূত্রকে অনেক পণ্ডিত গৃহী বিনয় হিসাবে আখ্যায়িত করেন। গৃহী জীবন যাপনের ক্ষেত্রে এ সূত্রের উপদেশ যথাযথভাবে প্রতিপালনের মাধ্যমে উন্নত গৃহী জীবন গঠন করা সম্ভব। এ সূত্রে গৃহী জীবনের নিত্য প্রতিপালনীয় বিষয় আলোচিত হয়েছে। আচার্য বুদ্ধঘোষ এ সূত্র সম্পর্কে বলেন, ‘গৃহী জীবনে প্রতিপালনীয় এমন কোন বিষয় নেই যা এ সূত্রে আলোচিত হয়নি’।যেভাবে শৃগালোবাদ সূত্র দেশনার প্রেক্ষাপট রচিত হয় ভগবান…

বুদ্ধের দর্শনঃপরকাল

বুদ্ধের দর্শনঃপরকাল বুদ্ধের দর্শন: বুদ্ধের দর্শনের প্রধান অংশ হচ্ছে দুঃখের কারণ ও তা নিরসনের উপায়। বাসনা হল সর্ব দুঃখের মূল। বৌদ্ধমতে সর্বপ্রকার বন্ধন থেকে মুক্তিই হচ্ছে প্রধান লক্ষ্য- এটাকেনির্বাণ বলা হয়। নির্বাণ শব্দের আক্ষরিক অর্থ নিভে যাওয়া (দীপনির্বাণ, নির্বাণোন্মুখ প্রদীপ), বিলুপ্তি, বিলয়, অবসান। কিন্তু বৌদ্ধ মতে নির্বাণ হল সকল প্রকার দুঃখ থেকে মুক্তি লাভ। এই সম্বন্ধে বুদ্ধদেবের চারটি উপদেশ যা চারি আর্য সত্য (পালিঃ চত্বারি আর্য্য সত্যানি) নামে পরিচিত। তিনি…

যশোধরা দেবী এবং বোধিসত্ত্ব সিদ্ধার্থের জন্মান্তরের কাহিনী

যশোধরা দেবী এবং বোধিসত্ত্ব সিদ্ধার্থের জন্মান্তরের কাহিনী একদা ভগবান বুদ্ধ জেতবনে অবস্থানকালে যশোধরা দেবী সম্পর্কে বলেছিলেন। বুদ্ধ বললেন- হে ভিক্ষুগণ, আমি শুধু যে এখন যশোধরা দেবীকে এরূপে লাভ করেছি তা নয়, পূর্বে ও তাকে স্ত্রীত্বে বরণ করবার জন্য বিরাট রাজ্যশ্রী, এমন কি মাতাপিতাকে পর্যন্ত ত্যাগ করে অন্যরাজ্যে গিয়েছিলাম। অতীতে কাশীরাজ্যে ব্রহ্মপুর নামক নগরে বন্ধুমিত্র নামক এক রাজা সাম্যভাবে ধর্মতঃ রাজত্ব করতেন। তাঁর অগ্রমহিষীর নাম ছিল দেবধীতা| তৎকালে বোধিসত্ত্ব তাবতিংশ স্বর্গ…

পণ্ডিত-শ্রামণের সংসর্গ লাভে সর্বদুঃখ হতে মুক্তি লাভ

পণ্ডিত-শ্রামণের সংসর্গ লাভে সর্বদুঃখ হতে মুক্তি লাভ আজ আমরা জানব বয়সে ছোট, কিন্তু ধর্ম জ্ঞানে জ্ঞানী এবং সর্ব আসব ক্ষয়প্রাপ্ত শ্রামণের গুণরাশি। সংকিচ্চ শ্রামণ শ্রাবস্তীর এক মহাধনী ব্রাহ্মণ-পরিবারে জন্ম নিয়েছিলেন। সপ্তবর্ষ বয়ঃক্রমকালে ধর্মসেনাপতি শারীপুত্রের নিকট তিনি প্রব্রজিত হন এবং কেশচ্ছেদনের সময় প্রতিসম্ভিদাসহ অর্হত্ত্ব সাক্ষাৎ করেন।একসময় ত্রিশজন ভিক্ষু বুদ্ধ হতে কর্মস্থান গ্রহণ করে ভাবনার জন্য অরণ্যে যাচ্ছিলেন। ভগবান অরণ্যে তাঁদের বিপদ হবে জেনে তাঁর ছোট শ্রামণ সংকিচ্চকে সঙ্গে নিতে বলেন। তাঁরা…

আনন্দ স্থবির ও চন্ডাল কন্যা উপাখ্যান

আনন্দ স্থবির ও চন্ডাল কন্যা উপাখ্যান চন্ডাল কন্যা কে ছিলেন এবং কেন আনন্দ স্থবিরকে বিয়ে করতে চেয়েছিলেন? একদিন আয়ুষ্মান আনন্দ পিন্ডাচরণে বের হয়ে ভোজনকার্য্য শেষ করিয়া জলপানের জন্য নদীর ধারে যাওয়ার সময় চন্ডাল কন্যার থেকে পানের জন্য কিঞ্চিৎ জল চাহিলেন। চন্ডালের মেয়ে নিজেদের নীচু জাতি ভেবে জল দিতে চাহিল না। তাঁহার জলের প্রয়োজন জাতির প্রয়োজন নাই আনন্দ এইকথা বলিলে চন্ডালকন্যা তাঁহাকে জল দান করে। আনন্দ জল পান করিয়া বিহারের দিকে…

মূর্খসঙ্গ মার্গফল লাভের উপনিশ্রয় সম্পত্তিও ধ্বংস করতে পারে

মূর্খসঙ্গ মার্গফল লাভের উপনিশ্রয় সম্পত্তিও ধ্বংস করতে পারে কিভাবে মূর্খসংগ ভয়ংকর হয়ে দাড়ায়? উপরাজকালে কুমার অজাতশত্রু দেবদত্তের ঋদ্ধিবলে বশীভূত হয়ে তাঁর প্রতি অত্যন্ত ভক্তিপরায়ণ হন। তিনি প্রতিদিন পাঁচশত ভিক্ষুর খাদ্য দেবদত্তের নিকট পাঠাতেন এবং সকাল বিকাল তার সেবার জন্য গমন করতেন। দেবদত্ত যখন বুঝতে পারেন যে কুমার সম্পূর্ণ তাঁর বশে এসেছেন তিনি একদিন কুমারকে বলেন- ‘পূর্বে মানুষেরা দীর্ঘায়ুসম্পন্ন ছিল, এখন কিন্তু মানুষের আয়ু অতি কম। এমনও হতে পারে যে আপনি…

বুদ্ধ কর্তৃক আর্তের সেবা

বুদ্ধ কর্তৃক আর্তের সেবা আমরা সবাই বুদ্ধ কিভাবে সেবা পেয়েছেন তা জানি। কিন্তু কেউ কি জানি যে, বুদ্ধ নিজেও আর্তের সেবা করেছেন? বুদ্ধের জীবদ্দশায় দেখা যায় আনন্দ মহাপরিনির্বাণ লাভ না করা পর্যন্ত বুদ্ধের সেবা করেছেন প্রধান সেবক হিসেবে থেকে। অন্যদিকে বুদ্ধ যখন পারিল্যেয় বনে চলে যায় তখন সেখানে হাতি, বানর বুদ্ধের সেবা করেছেন। তবে বুদ্ধ যে শুধু সেবা গ্রহণ করেছেন তা নয়, বুদ্ধ নিজেও আর্তের সেবা করেছেন। আজ জানব সেই…

জীবক বুদ্ধকে কি প্রশ্ন করেছিলেন?

জীবক বুদ্ধকে কি প্রশ্ন করেছিলেন? বুদ্ধ যখন আম্রবনে বাস করছিলেন তখন একদিন মহাভিষক জীবক বুদ্ধের সংগে সাক্ষাৎ করতে গেলেন এবং বুদ্ধকে বন্দনা করত: একপার্শ্বে উপবেশন করে বুদ্ধকে জিজ্ঞেস করলেন----ভদন্ত, শোনা যায়, আপনার দায়ক-দায়িকাগণ নাকি আপনার উদ্দেশ্যে প্রাণী হত্যা করেন এবং আপনি জেনে শুনে সে মাংস আহার করেন। তা কি সত্যি? নাকি আপনার নামে মিথ্যা অপবাদ এবং আপনাকে অপদস্থ করার জন্য এসব বলেন? তখন তথাগত বললেন, হে জীবক---আমাদের উদ্দেশ্যে জীব হত্যা…

পৌষ পূর্ণিমার তাৎপর্য

পৌষ পূর্ণিমার তাৎপর্য পৌষ পূর্ণিমা। পৌষ পূর্ণিমার তাৎপর্য ও প্রাসঙ্গিক কথা পাঠকের জ্ঞাতার্থে এখানে উপস্থাপন করা হল। তথাগতের লংকা গমন : পৌষ পূর্ণিমা দিনে অর্থাৎ বুদ্ধত্ব লাভের নয় মাস পরে ভগবান লংকাদ্বীপে সদ্ধর্ম প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে প্রথম যাত্রা করেছিলেন।তথাগত বুদ্ধ তিনবার সিংহলে গমন করেছিলেন। প্রথমবার উরুবেলা কশ্যপ, নদী কশ্যপ, গয়া কশ্যপ এই তিন ভাইকে স্বধর্মে দিক্ষীত করে উত্তর কুরুতে পিন্ডাচরণ করত: অনোবতপ্ত হ্রদের পাশে ভোজন করত: বুদ্ধত্ব লাভের নবম মাসে সিংহলের…

জগতে কয় প্রকার পুদ্গল বিদ্যমান ও তাঁদের গুণাবলী

জগতে কয় প্রকার পুদ্গল বিদ্যমান ও তাঁদের গুণাবলী পৃথিবীতে কয় প্রকার পুদগল আছে? তাদের গুণাবলী কি কি?তথাগত মহাকারুণিক বলেছেন --- হে ভিক্ষুগণ, পৃথিবীতে চার প্রকার পুদ্গল বিদ্যমান। সেই চার প্রকার কী কী? যথা : অনুস্রোতগামী পুদ্গল, প্রতিস্রোতগামী পুদ্গল, প্রতিষ্ঠিত পুদ্গল, ত্রিলোক অতিক্রান্ত ও নির্বাণে স্থিত পুদ্গল। ভিক্ষুগণ, অনুস্রোতগামী পুদ্গল কাকে বলে? এ জগতে কোনো পুদ্গলকামের প্রতি অনুরক্ত হয় এবং পাপকর্ম সম্পাদন করে। একেই বলা হয় অনুস্রোতগামী পুদ্গল।প্রতিস্রোতগামী পুদ্গল কাকে বলে?…

তৃষ্ণাই দুঃখের কারণ

তৃষ্ণাই দুঃখের কারণ অমধুর মধুর-রূপে, শত্রু মিত্র-রূপ ধরিয়া,দুঃখ এসে সুখেরি বেশে মত্তজনে যায় দলিয়াএই জাতকে দুইটি শিক্ষণীয় বিষয় আছে। ১। ভগবান সুপ্পবাসা-কে জিজ্ঞাসা করিলেন : সুপ্পবাসে, তুমি এইরূপ পুত্র আরও চাও কি? ভন্তে ভগবন, আমি এইরূপ আরও সাতপুত্র চাই। পুত্রের কথা শুনিয়া সাত বৎসর সাতদিনের গর্ভবেদনাজনিত বিষম দুঃখ একদিনে পুত্র-লোলতায় ভুলিয়া গেল; এই লোলতাই তৃষ্ণা|২। একজন শ্রদ্ধাবান উপাসক বুদ্ধের ফাং ৭ দিনের জন্য পিছিয়ে দিতে গিয়ে যে প্রশ্ন করেছিলেন তাহা…