২৫৬১ বুদ্ধাব্দ ৯ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ বৃহস্পতিবার, ২৪ অগাস্ট ২০১৭ইংরেজী

বৌদ্ধ ধর্ম ও দর্শন

মৈত্রী ভাবনা কিভাবে করবেন?

মৈত্রী ভাবনা কিভাবে করবেন? নিজের প্রাণের মমতার তুলনা দিয়া তথা সর্ব্বজীবের প্রাণের মমতা প্রদর্শন করিয়া--- আমি শত্রুহীন হই, বিপদহীন হই, রোগহীন হই এবং নিজে সুখে বাস করি। আমার ন্যায় আমার আচার্য্য (শিক্ষাগুরু), উপাধ্যায় (দীক্ষাগুরু), মাতাপিতা, উপকারী ব্যক্তি, মধ্যস্থ ব্যক্তি (যেই ব্যক্তি আমার উপকারও করে না অপকারও করে না) এবং শত্রুতাকারী ব্যক্তি সকলে শত্র“হীন হউক, বিপদহীন হউক, রোগহীন হউক, সুখে বাস করুক, সর্ব্বপ্রকার দুঃখ হইতে মুক্ত হউক, তাহারা তাহাদের নিজ নিজ…

বুদ্ধ ও বেলাম সূত্র

বুদ্ধ ও বেলাম সূত্র বুদ্ধ বেলাম সূত্রের মাধ্যমে কী শিক্ষা দিয়েছেন? বর্তমান বৌদ্ধ জাতির ক্রান্তিলগ্নে এই শিক্ষা কেন প্রয়োজন? তথাগত মহাকারুণিক বলেছেনঃ অতি প্রাচীনকালে বেলাম নামক জনৈক ব্রাহ্মণ ছিলেন। সেই সময় তিনি মহাদান দিয়েছিলেন। কিভাবে দিয়েছিলেন? রৌপ্যপূর্ণ চুরাশি সহস্র সুবর্ণ পাত্র, সুবর্ণ দ্বারা পরিপূর্ণ চুরাশি সহস্র রৌপ্য পাত্র, সপ্তরত্ন, পরিপূর্ণ চুরাশি সহস্র কাংস্য পাত্র। সুবর্ণ অলঙ্কার ও সুবর্ণ ধ্বজায় অলঙ্কৃত হেমজালে আচ্ছাদিত চুরাশি সহস্র হস্তীর সিংহ-চর্ম, ব্যাঘ্র-চর্ম, নেক্ড়ে-চর্ম ও পাণ্ডুকম্বল…

জ্যৈষ্ঠ পূর্ণিমার তাৎপর্য

জ্যৈষ্ঠ পূর্ণিমার তাৎপর্য বুদ্ধের রত্নঘর চৈত্যে চতুর্থ সপ্তাহ অবস্থান  মহাকারুণিক তথাগত ভগবান বুদ্ধ পবিত্র বৈশাখী পূর্ণিমা তিথিতে বোধিবৃক্ষমূলে বুদ্ধত্ব লাভ করার পর প্রথম সপ্তাহে দেবগণের সন্দেহ দূরীকরণার্থে বোধিপালংকে ৮ম দিবসে যমক প্রতিহায্য ঋদ্ধি প্রদর্শন পূর্বক গভীর ধ্যানে মগ্ন থাকেন। দ্বিতীয় সপ্তাহে অনিমেষ চৈত্য হতে সাতদিন যাবত চোখের পলক না ফেলে অনিমেষ লোচনে বোধিবৃক্ষের দিকে তাকিয়ে অসীম কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছিলেন। তৃতীয় সপ্তাহে ভগবান বুদ্ধ ১৯টি পদক্ষেপে চংক্রমণ ধ্যান করেছিলেন এবং ৪র্থ…

বৌদ্ধ ধর্ম কি নীতিশাস্ত্র ?

বৌদ্ধ ধর্ম কি নীতিশাস্ত্র ? একটি সার্বজনীন নীতিশাস্ত্র নিজের পরিপূর্ণতা এবং পরার্থপর মনোভাবের ক্ষেত্রে অপ্রতিদ্বন্দী এতে কোন সন্দেহ নেই। নীতিকথা সংসার ত্যাগী সন্ন্যাসীবৃন্দের জন্য এক রকম এবং গৃহী অনুসারীবৃন্দের জন্য ভিন্ন অর্থ বহন করে। কিন্তু বৌদ্ধ ধর্ম সাধারণ নীতিকথা শিক্ষণ থেকে অনেক বেশি কিছু। নৈতিকতা শধুমাত্র নির্বাণ পথ যাত্রার প্রাথমিক ভিত্তি স্বরূপ, চুড়ান্ত লক্ষ্যে পৌছার গুরুত্ব বহন করে কিন্তু নিজে উপনীত করে দেয় না। সঠিক পথ নির্দেশনা প্রয়োজনীয় হলেও বন্ধন…

ধ্যানীদের পরিচর্যার সুফল

ধ্যানীদের পরিচর্যার সুফল আমরা তো সংসারী মানুষ। কাজকর্ম করেই আমাদের খেতে হয়। প্রতিদিন যার যার কাজে সকালে যেতে হয়। আবার ফিরে আসি কাজ শেষে। তাই বাড়ীর কাছে বিহারে ধ্যান কোর্স শুরু হলেও আমরা ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও ধ্যান কোর্সে অংশগ্রহণ করতে পারি না। আবার অনেকেই ছোট বাচ্চা আছে বা ছেলে-মেয়েদের পড়ালেখার জন্য অংশগ্রহণ করতে পারেন না। আবার অনেকেই ৪০-৫০ বয়স হয়েছে, রোগের কারণে বা বিবিধ কারণে ধ্যানে বসার সুযোগ হয় না।…

মার বিজয়ী অরহত উপগুপ্ত মহাথেরো

মার বিজয়ী অরহত উপগুপ্ত মহাথেরো পুণ্যভূমি মথুরা নগরে বাস করত সুপ্রসিদ্ধ স্বনামধন্য গুপ্ত নামের একজন সুপ্রসিদ্ধ সুগন্ধ বণিক। তাঁর ছিল প্রচুর ধন ঐশ্বর্য, বহু হস্তি-রথ-অশ্ব-শকট। আর ছিল সুরম্য প্রসাদ। গুপ্ত নামের সুগন্ধ বণিক ও তাঁর সহধর্মিনী এতো ধন ঐশ্বর্য্য থাকা সত্ত্ব্ওে একটি সন্তানের অভাবে ছিলেন অববই অসুখী। কিন্তু স্বামী-স্ত্রী উভয়েই ছিলেন ধর্মপরায়ন। দানে ছিলেন অকৃপণ, শীলগুণে ছিলেন বিমন্ডিত। দীন দুঃখীর দুঃখ মোচনে তাঁরা ছিলেন সদা তৎপর। সুগন্ধ বণিকের স্ত্রী সবসময়…

পরশ পাথর

পরশ পাথর একটি চীবর দানে গিয়েছিলাম। সেখানে একজন ভিক্ষুর দেশনা আমাকে খুব নাড়া দিয়েছে। সেই দেশনার একাংশ পাঠকদের সাথে শেয়ার করার জন্য আজকের লেখাটির অবতারণা। ভিক্ষু দেশনায় বলছেন, একজন শিক্ষক তাঁর একজন প্রিয় ছাত্রকে একদিন একটি ছোট পাথর দিয়ে বললেন, এই পাথরটি যত্ন করে রেখো। খুবই মূল্যবান পাথর। ছাত্রটি পাথর হাতে নিয়ে নাড়াচাড়া করে দেখলো। আর মনে মনে বলছে, একটি ছোট পাথর এত মূল্যবান হয় কি করে? সে ভেবে ভেবে…

বৌদ্ধধর্ম কি ধর্ম?

বৌদ্ধধর্ম কি ধর্ম? প্রচলিত অর্থে ধর্ম বলতে যা বোঝায় সেই অনুযায়ী বৌদ্ধধর্ম ধর্ম নয়, কারণ এই মতবাদ “বিশ্বাস এবং প্রার্থনার মাধ্যমে কোন অতিমানবীয় শক্তির কাছে আনুগত্য স্বীকার করা নয়।” বৌদ্ধধর্ম নিজের অনুসারীবৃন্দের নিকট অন্ধবিশ্বাসের প্রত্যাশী নয়। এই ধর্মে জ্ঞানের মাধ্যমে উৎপন্ন বিশ্বাসের ভিত্তিতে অন্ধ বিশ্বাসকে সমূলে উপরে ফেলা হয়। পালি ভাষায় এই জ্ঞানকে বলা হয় সদ্ধা [শ্রদ্ধা]। বুদ্ধ’র প্রতি একজন অনুরাগীর শ্রদ্ধা একজন সুবিখ্যাত চিকিৎসকের প্রতি একজন রোগীর নির্ভরতা কিংবা…

পুণ্যদান এবং প্রাসঙ্গিক প্রসঙ্গ

পুণ্যদান এবং প্রাসঙ্গিক প্রসঙ্গ ১ম পর্ব...আজ এই অনিত্য সভায় দাঁড়িয়ে পরলোকগত সুহৃদের পারলৌকিক সদগতি কামনায় আমি আমার জীবনের সঞ্চিত সকল পুণ্যরাশি দান করছি। যদি তিনি পাওয়ার স্থানে থাকেন তবে আমার এই পুণ্যরাশি লাভ করে মুক্তিলাভ করুন। অধিকাংশ অনিত্য সভায় মৃত জ্ঞাতির প্রতি সাধারণের সর্বশেষ প্রত্যাশা এমনই। পূজনীয় ভিক্ষুসংঘও একইভাবে তাঁদের শীলময়, ভাবনাময় পুণ্যরাশি দান করে থাকেন। তাছাড়া আমরা আমাদের জ্ঞাতির অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় ‘পরলোক’ ‘পারলৌকিক’ শব্দগুলো ব্যবহার করি। যদিও আমি আজ ‘পরলোক’…

বৌদ্ধ ধর্মের বিশ্বজনীনতা

বৌদ্ধ ধর্মের বিশ্বজনীনতা একটা সম্প্রদায়ের আত্ম পরিচয়ের বাহন একদিকে তার দর্শন ও ধর্ম, তেমনি অন্যদিকে তার ঐতিহ্য ও চলমান বর্তমান। বাংলাদেশী বৌদ্ধদের রয়েছে তেমনি গৌরবোজ্জ্বল ধর্ম, দর্শন ও ঐতিহ্য। বৌদ্ধ ধর্ম ও দর্শন পঁচিশ শতাব্দীরও বেশী কাল ধরে মানব সমাজকে এক নতুন আলোর সন্ধান দিয়েছে। এই আলোর পথ ধরেই দেশে দেশে জন্ম নিয়েছে, নব নব কৃষ্টি সভ্যতার। কুসংস্কার, অন্ধবিশ্বাস, বর্ণবাদ, গোঁড়ামী ও সংকীর্ণতার বিরুদ্ধে বৌদ্ধ ধর্ম এক ব্যাপক বিদ্রোহ। ঘন…

বিশ্ব বৌদ্ধদের জাতীয় উৎসব বুদ্ধ পূর্ণিমা ও প্রাসঙ্গিক কিছুকথা

বিশ্ব বৌদ্ধদের জাতীয় উৎসব বুদ্ধ পূর্ণিমা ও প্রাসঙ্গিক কিছুকথা সিদ্ধার্থ গৌতমের জন্ম : শাক্যরাজ শুদ্ধোধন ও অগ্রমহিষী মহামায়া দেবীর পুত্ররূপে জন্মগ্রহণ করেন কুমার গৌতম। দেবী মহামায়া যখন দশমাস কাল অতিক্রম করছেন তখন তাঁর পিত্রালয়ে যাবার সাধ জাগে। রাজা শুদ্ধোধন কপিলাবস্তু থেকে দেবদহ নগরে যাবার সমস্ত ব্যবস্থা করে দেন। কপিলাবস্তু ও দেবদহ নগরের মধ্যবর্তী স্থানে লুম্বিনী উদ্যানে পৌঁছলে দেবীর প্রসব বেদনা শুরু হল। মাতৃকুক্ষি হতে নিষ্ক্রান্ত হয়ে তিনি সপ্তপদ অগ্রসর হন।…

বুদ্ধ পূর্ণিমা : বুদ্ধের শিক্ষা

বুদ্ধ পূর্ণিমা : বুদ্ধের শিক্ষা বুদ্ধ পূর্ণিমা সমগ্র মানব জাতির জন্য নিয়ে আসে শান্তির মহান বার্তা। সকল প্রকার হিংসা, শোষণ-নির্যাতন, অবিচার- অনাচার, বর্ণ বৈষম্য, বিভেদ,পৈশাচিকতার বেড়াজাল ছিন্ন করে, ক্ষমা, সহিষ্ণুতা বা ক্ষান্তি, ত্যাগ দয়াশীলতা, সংযমতা বা চারিত্রিক শক্তিতে বলিয়ান হয়ে পাপে ঘৃনা, পূন্যকাজে অকুতোভয় জীবন রক্ষাই বুদ্ধের শিক্ষা। বুদ্ধের জীবদ্দশায় বহু ধর্ম প্রবক্তা তথা ধর্ম প্রচারকের নাম প্রাচীন ভারতের ইতিহাসে পরিদৃষ্ট হয়। ভারতীয় দর্শন শাস্ত্রে দেখা যায় প্রাচীন ভারত ষড়দর্শনের…

বুদ্ধ

বুদ্ধ ৬২৩ খ্রীস্ট পূর্বাব্দে মে মাসের এক পূর্ণিমায় নেপালের একটি জেলায় সিদ্ধার্থ গৌতম নামক এক ভারতীয় শাক্যবংশীয় রাজপূত্র জন্ম নেন যাঁর নিয়তি ছিল তিনি ভবিষ্যতে বিশ্বময় সর্বশ্রেষ্ঠ ধর্মীয় গুরু রূপে স্বীকৃত হবেন। বিলাস প্রাচুর্যের মাঝে তিনি বেড়ে উঠলেন, রাজপূত্রের প্রয়োজনীয় শিক্ষা সমাপ্ত করলেন, বিবাহিত হয়ে এক পূত্রের জনক হলেন। তাঁর অসীম করুণাপূর্ণ এবং চিন্তাশীল মন রাজপ্রাসাদের ক্ষণিক বৈষয়িক সুখ উপভোগে বাঁধা হয়ে দাঁড়াল। দু:খ শোকের সাথে পরিচিত না হলেও তিনি…

রতন সূত্রের উৎপত্তির কথা

রতন সূত্রের উৎপত্তির কথা আজ আমরা জানব রতন সূত্রের উৎপত্তি সম্পর্কে ভগবান বুদ্ধের জীবদ্দশায় বৈশালী অতিশয় সমৃদ্ধশালী নগরী ছিল। সর্ববিধ উপভোগ্য, পরিভোগ্য বিত্তসম্পদে সমৃদ্ধ বৈশালীতে কালের কুটিল গতিতে একদা অনাবৃষ্টি দেখা দিল। ফলে শস্যক্ষেত্র বিনষ্ট হইল, দেশে দুর্ভিক্ষের করাল ছায়া নামিয়া আসিল। সহায়-সম্বলহীন অসংখ্য দরিদ্র মানুষ কাতারে কতারে মৃত্যুমুখে পতিত হইল। ক্রমে এত অধিক লোক মরিতে আরম্ভ করিল যে, মৃতদেহের সৎকার করা অসম্ভব হইয়া পড়িল। পচা-দুর্গন্ধময় মৃতদেহ দেখিতে দেখিতে ঘৃণা…

পণ্ডিত-শ্রামণের সংসর্গ লাভে সর্বদুঃখ হতে মুক্তি লাভ

পণ্ডিত-শ্রামণের সংসর্গ লাভে সর্বদুঃখ হতে মুক্তি লাভ আজ আমরা জানব বয়সে ছোট, কিন্তু ধর্ম জ্ঞানে জ্ঞানী এবং সর্ব আসব ক্ষয়প্রাপ্ত শ্রামণের গুণরাশি।সংকিচ্চ শ্রামণ শ্রাবস্তীর এক মহাধনী ব্রাহ্মণ-পরিবারে জন্ম নিয়েছিলেন। সপ্তবর্ষ বয়ঃক্রমকালে ধর্মসেনাপতি শারীপুত্রের নিকট তিনি প্রব্রজিত হন এবং কেশচ্ছেদনের সময় প্রতিসম্ভিদাসহ অর্হত্ত্ব সাক্ষাৎ করেন।একসময় ত্রিশজন ভিক্ষু বুদ্ধ হতে কর্মস্থান গ্রহণ করে ভাবনার জন্য অরণ্যে যাচ্ছিলেন। ভগবান অরণ্যে তাঁদের বিপদ হবে জেনে তাঁর ছোট শ্রামণ সংকিচ্চকে সঙ্গে নিতে বলেন। তাঁরা প্রথমে…