২৫৬১ বুদ্ধাব্দ ১১ আশ্বিন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ মঙ্গলবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭ইংরেজী

বৌদ্ধ ধর্ম ও দর্শন

সম্যকদৃষ্টি : কিসে আর্যশ্রাবক সম্যকদৃষ্টি সম্পন্ন হন?

সম্যকদৃষ্টি : কিসে আর্যশ্রাবক সম্যকদৃষ্টি সম্পন্ন হন? এক সময় ভগবান শ্রাবস্তীর নিকটে জেতবনে অনাথপিণ্ডিকের বিহারে অবস্থান করছিলেন। সে সময়ে একদিন আয়ুষ্মান সারিপুত্র সমবেত ভিক্ষুগণকে আহ্বান করে বললেন, বন্ধুগণ!। ভিক্ষুরা প্রত্যুত্তরে হ্যাঁ ভন্তে বলে সাড়া দিলেন। আয়ুষ্মান সারিপুত্র বললেন’ বন্ধুগণ! এই যে লোকে সম্যকদৃষ্টি , সম্যকদৃষ্টি বলে; কিসে আর্যশ্রাবক সম্যক দৃষ্টিসম্পন্ন হন? কিসে তাঁর দৃষ্টি ঋজু হয়? কিসে বা ধর্মে তিনি অচল চিত্ত প্রসাদসম্পন্ন হয়ে এই সদ্ধর্মে আগত (প্রবিষ্ট) হন?আয়ুষ্মান সারিপুত্র…

ফাল্গুনী পূর্ণিমার তাৎপর্য

ফাল্গুনী পূর্ণিমার তাৎপর্য তথাগতের শাক্যরাজ্যে গমন ও জ্ঞাতি সম্মেলন  মহাকারুণিক তথাগত ভগবান বুদ্ধ রাজা বিম্বিসার নির্মিত বেণুবন বিহারে অবস্থান করছেন। বহুজনের হিতের জন্য বহুজনের মঙ্গলের জন্য ধর্মসুধা বিতরণ করে চলেছেন। রাজা শুদ্ধোধন ৭ বছর ধরে পুত্রকে দেখেননি সুতরাং তিনি পুত্রকে দর্শনের জন্য অত্যন্ত ব্যাকুল হয়ে উঠলেন। রাহুলের বয়স এখন সাত বৎসর। সংসার ত্যাগ করে যাওয়ার পর থেকে পিতাকে দেখার সৌভাগ্য তার হয়নি। রাজা তার একজন মন্ত্রীকে ১০০০ লোকসহ বুদ্ধকে নিয়ে…

ধর্ম : চয়নিকা রিতিমা

ধর্ম : চয়নিকা রিতিমা ধর্ম অথবা দর্শন ? বুদ্ধ ভাষিত আগ্রাসী মনোভাব বিহীন নৈতিক এবং দার্শনিক মতবাদ যা অনুসারীবৃন্দের কাছ থেকে কোন অন্ধ বিশ্বাস দাবী করে না, কাল্পনিক মতবাদে বিশ্বাসী করে তোলে না, কুসংস্কারময় কোন আচার-অনুষ্ঠান কে উৎসাহিত করে না, কিন্তু এর পরিবর্তে এমন একটি সুবর্ণ সুযোগ প্রদান করে যাতে অনুসারীবৃন্দ বিশুদ্ধ জীবন যাপন এবং নির্মল চিন্তার অনুশীলনে সকল প্রকার অকুশল বীজ ধ্বংস করে সর্বোচ্চ প্রজ্ঞা অর্জন করতে পারে, একে…

অনাগত আর্যমিত্র বুদ্ধ সম্পর্কে গৌতম বুদ্ধের ভবিষ্যদ্বাণী ও পঞ্চ বিলুপ্তি

অনাগত আর্যমিত্র বুদ্ধ সম্পর্কে গৌতম বুদ্ধের ভবিষ্যদ্বাণী ও পঞ্চ বিলুপ্তি একদা গৌতম বুদ্ধ শাক্যদের নির্মিত নিগ্রোধারামে অবস্থানকালীন তাঁর বিমাতা ও মাসি মহাপ্রজাপতি গৌতমী দু’খানা চীবর তৈরী করে বুদ্ধকে দান করেছিলেন। বুদ্ধ একখানা চীবর গ্রহণ করে অপর চীবরখানা অন্য ভিক্ষুকে প্রদান করার জন্য বললেন। মহাপ্রজাপতি গৌতমী চীবরখানালয়ে এক এক করে প্রত্যেক ভিক্ষুকে বললেন, ভন্তে, চীবর চীবরখানা দান করছি, গ্রহণ করুন। কিন্তু কোনো ভিক্ষুই ঐ চীবরখানা গ্রহণ করলেন না।” কারণ, তাঁরা জানতেন…

তথাগত মহাকারুণিক বুদ্ধের আয়ুসংষ্কার বিসর্জন

তথাগত মহাকারুণিক বুদ্ধের আয়ুসংষ্কার বিসর্জন মাঘী পূর্ণিমা দিবসে মহাকারুণিক বুদ্ধ বৈশালীতে পিন্ডাচরণ শেষে আনন্দকে নিয়ে বৈশালীর অদূরে চাপাল চৈত্যে এসে উপস্থিত হয়ে তাঁর জন্য বি¯তৃত আসনে উপবেশন করতঃ আনন্দকে লক্ষ্য করে বললেন, ”হে আনন্দ,! রমণীয় বৈশালী, রমণীয় উদেন চৈত্য, রমণীয় গৌতমক চৈত্য, রমণীয় সত্ত্স্ব চৈত্য, রমণীয় বহুপুত্র চৈত্য, রমণীয় আনন্দ চৈত্য, রমণীয় চাপাল চৈত্য। হে আনন্দ, যে কারো চারি ঋদ্ধিপাদ ভাবিত বর্ধিত, বহুলীকৃত, রথগতি সদৃশ্য, অনর্গল অভ্যস্থ বাস্তুভূমি সদৃশ্য প্রতিষ্ঠিত…

‎সংস্কার ও ধ্বংস হয়‬ : সুলেখা বড়ুয়া

‎সংস্কার ও ধ্বংস হয় :‬ সুলেখা বড়ুয়া "বুদ্ধের মুখ নিশ্রিত বাণীসংস্কার ও ধ্বংস হয়।" সংস্কারের পালি অভিধা সংখার, সংস্কার উৎপত্তির জন্য পাপ ও পূণ্য অর্থাৎ অবিদ্যা প্রধান প্রত্যয়, অনেকে অবিদ্যা দ্বারা শুধু পাপ কাজের মাধ্যমে অকুশল সংস্কার সৃষ্টি করে বলে মনে করে, অবিদ্যা দুঃখকে সুখের মুখোশ পরিয়ে পরোক্ষভাবে পুণ্য বা কুশল অকুশল এবং আনেজ্ঞা সংস্কার উৎপাদনে ও সাহায্য করে, সুতারাং এ অজ্ঞতার কারণে অকুশল, কুশল এবং আনেজ্ঞা (নিশ্চল) সংস্কার উৎপন্ন হয়,…

পুনর্জন্ম বিষয়ক মতবাদ

পুনর্জন্ম বিষয়ক মতবাদ সুপ্রাচীন কাল থেকেই পুনর্জন্ম অথবা মৃত্যু পরবর্তী জীবন বিষয়ক সমস্যা একটি বিতর্কিত বিষয় হিসাবে প্রায় অধিকাংশ ধর্মীয় গুরুদের মনযোগ আকর্ষণ করে আসছে। পুনর্জন্মে বিশ্বাসী ব্যক্তিবর্গ ও ছিলেন এবং অবিশ্বাসী ব্যক্তিবর্গ ও ছিলেন। পুনর্জন্মের পক্ষে বিপক্ষে প্রাপ্ত সাক্ষ্য প্রমাণ এবং ব্যখ্যা এসেছে এই মতবাদে বিশ্বাসী এবং বিরুদ্ধবাদীদের নিকট থেকে যা দুদিক থেকেই সমানভাবে গ্রহণযোগ্য বলে মনে হয়, কিন্তু সকল ধর্মীয় ইতিহাসে এমন কোন সময় নেই যেখানে এই সমস্যার…

ষোল প্রকার বিদর্শন স্তরের রুপ বর্ণনা

ষোল প্রকার বিদর্শন স্তরের রুপ বর্ণনা বিদর্শন ভাবনাকারীদের মার্গ লাভের পূর্বে ষোল প্রকার বিদর্শনস্তর অতিক্রম করতে হবে। নিম্নে সে ষোল প্রকার স্তরের সংক্ষিপ্ত বর্ণনা প্রদত্ত হলো :(১) নাম-রূপ পরিচ্ছেদ জ্ঞান : নাম-রূপ ব্যতিত কোন কিছু সৃষ্ট নয়। নাম-রূপের যথাযথ জ্ঞানের অভাবেই আমি সংজ্ঞা উৎপন্ন হয়। এ নাম-রূপ সত্ত্বও নয়। নাম-রূপই সংস্কারের সৃষ্টি। নৌকার সাহায্যে যেমন নদী পার হওয়া যায় তেমনি নাম-রূপের সাহায্যে এ দেহ তরী চালিত হচ্ছে। নাম-রূপ পরষ্পরের সম্বন্ধযুক্ত…

পৌষ পূর্ণিমার তাৎপর্য

পৌষ পূর্ণিমার তাৎপর্য আজ পৌষ পূর্ণিমা। সকলেই উপোসথশীল পালন করুন এবং অশেষ পুণ্যের ভাগীদার হউন এই কামনায় পৌষ পূর্ণিমার তাৎপর্য উপস্থাপন করলাম।  তথাগতের লংকা গমন : পৌষ পূর্ণিমা দিনে অর্থাৎ বুদ্ধত্ব লাভের নয় মাস পরে ভগবান লংকাদ্বীপে সদ্ধর্ম প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে প্রথম যাত্রা করেছিলেন।তথাগত বুদ্ধ তিনবার সিংহলে গমন করেছিলেন। প্রথমবার উরুবেলা কশ্যপ, নদী কশ্যপ, গয়া কশ্যপ এই তিন ভাইকে স্বধর্মে দিক্ষীত করে উত্তর কুরুতে পিন্ডাচরণ করত: অনোবতপ্ত হ্রদের পাশে ভোজন করত:…

পুনর্জন্ম বিষয়ক মতবাদ

পুনর্জন্ম বিষয়ক মতবাদ সুপ্রাচীন কাল থেকেই পুনর্জন্ম অথবা মৃত্যু পরবর্তী জীবন বিষয়ক সমস্যা একটি বিতর্কিত বিষয় হিসাবে প্রায় অধিকাংশ ধর্মীয় গুরুদের মনযোগ আকর্ষণ করে আসছে। পুনর্জন্মে বিশ্বাসী ব্যক্তিবর্গ ও ছিলেন এবং অবিশ্বাসী ব্যক্তিবর্গ ও ছিলেন। পুনর্জন্মের পক্ষে বিপক্ষে প্রাপ্ত সাক্ষ্য প্রমাণ এবং ব্যখ্যা এসেছে এই মতবাদে বিশ্বাসী এবং বিরুদ্ধবাদীদের নিকট থেকে যা দুদিক থেকেই সমানভাবে গ্রহণযোগ্য বলে মনে হয়, কিন্তু সকল ধর্মীয় ইতিহাসে এমন কোন সময় নেই যেখানে এই সমস্যার…

বিদর্শন ভাবনাকে সর্বরোগের মহৌষধ কেন বলা হয়?

বিদর্শন ভাবনাকে সর্বরোগের মহৌষধ কেন বলা হয়? পৃথিবীতে শিক্ষিত-অশিক্ষিত অনেক লোকের মধ্যে দেখা যায় পর-পীড়ন, নিষ্ঠুর-আচরণ, হিংসা পরায়নতা, পরশ্রী কাতরতা, অনর্থক বাগাড়ম্বরতা, অহংকারিতা, অপরের প্রতি বিদ্বেষ প্রবণতা, অপরের শ্রী-সৌভাগ্যে নিরানন্দতা ইত্যাদি অমানবিক আচরণ সমূহ। এসব অগুণের কারণে দুর্লভ মানবজীবন হয়ে উঠে পশুতুল্য, দুর্বিসহ। এগুলি থেকে পরিত্রান পাওয়ার জন্য কেহ কেহ যে প্রচেষ্টা করছেন না তাও নয়। তবে এ সব পাশবিক দোষ সমূহ থেকে সম্পূর্ণভাবে নিষ্ক্রান্ত হয়ে পূণ্য ও প্রজ্ঞাময় পরিশুদ্ধ…

বিদর্শন ভাবনা কীভাবে শুরু করবেন? (পর্ব-১)

বিদর্শন ভাবনা কীভাবে শুরু করবেন? (পর্ব-১) আজ থেকে ধারাবাহিকভাবে ধ্যান বিষয়ে কিছু উপস্থাপন করব। যারা এই বিষয়ে আগ্রহী আশা করি তারা উপকৃত হবেন। বিদর্শনকে পালিত বিপস্সনা বলা হয়। বিপস্সনা শব্দটি বিপস্সনা সহযোগে গঠিত হয়েছে। বিভিন্নতা অর্থে বি এবং দেখা অর্থে পসসনা ব্যবহৃত হয়েছে। এখন প্রশ্ন হতে পারে বিভিন্ন ভাবে কি দেখব? আমাদের দেহের ষড় ইন্দ্রিয় দ্বারে বর্তমান সময়ে যাহা কিছু বিষয় বা আলম্বন উৎপন্ন হয় সে সব বিষয়কে স্মৃতি দ্বারা দর্শন করতে…

ধর্ম সেনাপতি অগ্রশ্রাবক সারিপুত্র মহাস্থবির ও কার্তিক পূর্ণিমার তাৎপর্য

ধর্ম সেনাপতি অগ্রশ্রাবক সারিপুত্র মহাস্থবির ও কার্তিক পূর্ণিমার তাৎপর্য কার্তিক পূর্ণিমায় কী ঘটেছিল?ধর্ম সেনাপতি অগ্রশ্রাবক সারিপুত্র মহাস্থবির কোন পূর্ণিমাতে পরিনির্বাপিত হন? কার্ত্তিক পূর্ণিমা। এই পূর্ণিমার কী ঘটেছিল? চলুন আমরা জানার চেষ্টা করি কার্তিক পূর্ণিমার তাৎপর্য।ত্রিপিটক শাস্ত্রে অসাধারণ জ্ঞানী অগ্রশ্রাবক সারিপুত্র স্থবির ছিলেন পন্ডিত, ধীমান, যশস্বী, মহাপ্রাজ্ঞ, ক্ষিপ্র প্রত্যুৎপন্ন, তীক্ষ্ম প্রাজ্ঞ ও বিরাগ প্রাজ্ঞ । একদিন সারিপুত্র মহাস্থবির ফল সমাপত্তি ধ্যান হতে উঠে চিন্তা করছিলেন যে বুদ্ধ আগে পরিনির্বাপিত হবেন না…

বুদ্ধ ধাতু সংরক্ষণ : মহাকশ্যপ স্থবির, অজাতশত্রু ও সম্রাট অশোক (শেষ পর্ব)

বুদ্ধ ধাতু সংরক্ষণ : মহাকশ্যপ স্থবির, অজাতশত্রু ও সম্রাট অশোক (শেষ পর্ব) রাজা ধর্মাশোক বুদ্ধের ধাতু সমূহ কিভাবে পেলেন? অদ্ভুদ সেই কাহিনী। জানতে চাইলে আজকের শেষ পর্বে পড়ুন বিস্তারিত। তখন দেবরাজ ইন্দ্র বিশ্বকর্ম্মাকে ডাকিয়া বলিলেন; তাত অজাতশত্রু কর্ত্তৃক বুদ্ধাস্থি নিধাহিত হইয়াছে, এখন তুমি গিয়া তৎসমুদয় রক্ষার সুব্যবস্থা কর। দেবেন্দ্রের আদেশে বিশ্বকর্ম্মা আসিয়া বাড় সঙ্ঘাটি যন্ত্র যোজিত করিলেন। স্ফটিকবর্ণের খড়্গ হস্তে কাষ্ঠমূর্ত্তি সকল বুদ্ধাস্থি গৃহের চতুর্দ্দিকে বায়ুবেগে ঘুর্ণয়মানযন্ত্র যুক্ত করিয়া এক…

বুদ্ধ শাসনে পুত্র দান : কেন করবেন এবং দানের সুফল কী?

বুদ্ধ শাসনে পুত্র দান কেন করবেন? পুত্র দানের সুফল কী কী? স্বীয় ঔরস জাত পুত্রকে বুদ্ধশাসনের উপকার ও পুত্রের মুক্তির হেতু শ্রদ্ধার সহিত প্রব্রজিত করাইয়া দেওয়াকে পুত্রদান বলে। পুত্রদানের কিঞ্চিন্মাত্র হইলেও পুণ্য-ফল লাভের আশায় শাসন প্রতিরূপ দেশে সপ্তাহকালের জন্য হইলেও পুত্রকে প্রব্রজিত করাইয়া রাখে। এই প্রব্রজ্যা দ্বারা ভবিষ্যৎ জন্মে চির মুক্তির নিষ্ক্রমণের সংস্কার উৎপন্ন হয়।  বলা হয়েছে যদি কোন চক্রবর্তী রাজ স্বীয় ঋদ্ধি প্রভাবে জম্বুদ্বীপ প্রমাণ বিহার নির্মাণ করিয়া, তাহাতে…