২৫৬১ বুদ্ধাব্দ ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর ২০১৭ইংরেজী
Sunny

25°C

Chittagong

Sunny

Humidity: 64%

Wind: 11.27 km/h

  • 25 Nov 2017

    Sunny 27°C 16°C

  • 26 Nov 2017

    Mostly Sunny 27°C 15°C

  • সেই খানেরই গলদ, যেখানে সততা নেই। টাকা পয়সার দিকে নজর দিলে কাজের নেশা নষ্ঠ হয়ে যায়। টাকা পয়সা বড় কথা নয়, কাজ চাই।

    মহাসংঘনায়ক শ্রীসদ্ধর্মভাণক বিশুদ্ধানন্দ

  • আমাদের সমাজে যে এখনো কোন বড় কোন প্রতিভার জন্ম সম্ভব হচ্ছে না, তার কারণ পরশ্রীকাতরতা। আমরা গুণের কদর করি খুব কম। কিন্তু মন্দটাকে সগর্বে প্রচার করে বেড়াতে পারি।

    মহাসংঘনায়ক শ্রীসদ্ধর্মভাণক বিশুদ্ধানন্দ মহাথের

  • যুদ্ধ সভ্যতাকে ধ্বংস করে এবং শান্তি বিশ্বকে সুন্দর করে । যুদ্ধ মানুষকে অমানুষ করিয়ে দেয়, যুদ্ধ ছিনিয়ে নেয় প্রেম-ভালবাসা এবং যুদ্ধের আগুনে আত্নহুতি দিতে হয় বহু প্রাণের । যুদ্ধকে মনে প্রাণে ঘৃণা করা উচিৎ।

    মহাসংঘনায়ক শ্রীসদ্ধর্মভাণক বিশুদ্ধানন্দ মহাথের

  • আপনি যেমন মহৎ চিন্তা করেন কাজেও সেইরুপ হউন, আপনার কথাকে কাজের সাথে এবং কাজকে কথার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ করে তুলুন।
    মহাসংঘনায়ক শ্রীসদ্ধর্মভাণক বিশুদ্ধানন্দ

বৌদ্ধ দর্শন

ক্ষন সম্পদ লাভ দুর্লভ কেন?

ক্ষন সম্পদ লাভ দুর্লভ কেন? সবার প্রতি অনুরোধ রইল লেখাটি ভালোভাবে পড়বেন। হৃদয়ংগম করা চেষ্টা করবেন। অষ্ট অক্ষণমুক্ত হইয়া ভগবান বুদ্ধের উৎপত্তিকালে মানব জন্ম লাভ করা অতীব কষ্টসাধ্য। কিন্ত সেই অক্ষণ কী ? কোন্ কোন্ সময়কে অক্ষণ বলা হয় ? অপায় (অর্থাৎ নরক, তির্যক ও প্রেতযোনী), অরূপ ও অসংজ্ঞ ব্রহ্মলোকে উৎপত্তি, প্রত্যন্ত দেশে জন্ম, পঞ্চ ইন্দ্রিয়ের বিকলতা, দারুণ মিথ্যাদৃষ্টি পরায়ণ ও সদ্ধর্ম দাতা বুদ্ধের অনুৎপত্তিক্ষণ-এই অষ্টবিধ সময়কে অষ্ট অক্ষণ বা…

কঠিন চীবর দান বৌদ্ধদের নিকট অতীব গুরুত্বপূর্ণ কেন?

কঠিন চীবর দান বৌদ্ধদের নিকট অতীব গুরুত্বপূর্ণ কেন? প্রবারণা পূর্ণিমার পরদিন থেকে শুরু হয়েছে কঠিন চীবর দানানুষ্ঠান। একমাস ব্যাপী মহাসমারোহে এই চীবর দান অনুষ্ঠান চলবে। কিন্তু একমাস পরে আপনি হাজার হাজার চীবর দান করতে পারবেন। পারবেন না কঠিন চীবর দান করতে। কিন্তু কেন? তাহলে জেনে নিই কঠিন চীবর দান কঠিন কেন? আমরা সবাই বলে থাকি কঠিন চীবর দান করব। আসলে আদৌ আমরা কখনো কি চিন্তা করে দেখি, কঠিন বলা হয়…

মানবজীবনে গৃহীশীলের গুরুত্ব : সুলেখা বড়ুয়া

মানবজীবনে গৃহীশীলের গুরুত্ব : সুলেখা বড়ুয়া চেতনাই কর্ম, চেতনা কর্মে রুপান্তরিত হয়, সচেতন চেষ্টা ছাড়া কর্মের অনুষ্ঠান হয় না, অতএব প্রতি কর্মের মুলে রয়েছে কর্ম সম্পাদনের চেতনা । শীলের মোটামুটি অর্থ শীলন বা সমাধান, অর্থাৎ সুশীলতার দ্বারা কায়িক কর্ম, বাচনিক কর্ম ও মানসিক কর্মের সুশৃঙ্খলতা ।মিলিন্দ প্রশ্নে বলা হয়েছে শীলের উপর নির্ভর করে যাবতীয় কুশল কর্ম সাধিত হয়, স্বয়ং তথাগত গৌতম বুদ্ধ বলেছেন, শীল প্রতিপালন দ্বারা কায় বিশুদ্ধ করে সমাধি…

পঞ্চবৈরী কি কি?

পঞ্চবৈরী কি কি? আজ আমরা জানব পঞ্চবৈরী সম্পর্কে। কারণ আমরা সবসময় পঞ্চবৈরীর ভয়ে প্রকম্পিত, দুশ্চিন্তাগ্রস্থ। এই পঞ্চবৈরী কি কি? ১। অগ্নিশত্রু – আমরা সর্বদা আগুন নিয়ে আতংকে থাকি। কেন? যদি কোন কারণে বাসায় বা বাড়িতে আগুন লাগে তাহলে কষ্টার্জিত টাকা-পয়সা, স্বর্ণ রৌপ্য যাই থাকুক না কেন কিংবা গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র সব এক নিমেষেই ধ্বংস হয়ে যাবে। ২। জলশত্রু – বন্যা হলে জীবন হানি হতে পারে। যদি অত্যধিক পানির উচ্চতা বেড়ে যায়,…

বৌদ্ধ ধর্মের কিছু সুমহান বৈশিষ্ট্য

বৌদ্ধ ধর্মের কিছু সুমহান বৈশিষ্ট্য  বৌদ্ধ ধর্মের ভিত্তি চারি আর্য সত্য, ক্রমানুসারে দু:খ ; দু:খের কারণ অর্থাৎ তৃষ্ণা ; দু:খের নির্বাপন অর্থাৎ নির্বাণ ; এবং মধ্যম পন্থা অবলম্বন। দু:খ আর্য সত্য কি ? “জন্ম দু:খ, জরা দু:খ, ব্যাধি দু:খ, মৃত্যু দু:খ, অপ্রিয় সংযোগ দু:খ, প্রিয় বিয়োগ দু:খ, কাঙ্খিত বিষয় না পাওয়ার দু:খ, সংক্ষেপে পঞ্চস্কন্ধ সমন্বিত হওয়াই দু:খ।” দু:খের কারণ আর্য সত্য কি ? “তৃষ্ণাই কামনা-বাসনার মাধ্যমে জন্ম - জন্মান্তরে মানুষকে…

জয়মংগল অট্ঠগাথার বাংলা অনুবাদ ১ম পর্ব

জয়মংগল অট্ঠগাথার বাংলা অনুবাদ ১ম পর্ব আজকের লেখাটি জয়মংগল অষ্ট গাথার ১ম প্যারার বাংলায় বিশদ ব্যাখ্যা। অনুরোধ রইলো যদি একবার মনোযোগ দিয়ে পড়েন খুবই ভালো লাগবে। জানবেন অনেক কিছুই। যদি আপনাদের ভালো লাগে, আপনাদের যদি পড়ার ইচ্ছা জাগে, তাহলেই পরবর্তী পর্যায় সমূহ প্রকাশ করবো। অন্যথায় নয়। বাহুং সহস্সভিনিম্মিতং সাযুধন্তং,গিরিমেখল-উদিত-ঘোর-সসেন মারং।দানাদি ধম্ম-বিধিনা জিতবা মুনিন্দো,তন্তেজসা ভবতু তে জয়মংগলানি। সংক্ষেপে শব্দের অর্থসমূহ = বাহুং-বাহু (হাত),সাযুধন্তং -অস্ত্রসস্ত্রে সুসজ্জিত। সসেন-সসৈন্য, দানাদি-দান আদি (পারমি), জিতবা-জয়ী, তেজসা-তেজশক্তির…

মিলিন্দ : প্রশ্ন ও অনুসন্ধিৎসু মন (শেষ পর্ব)

মিলিন্দ : প্রশ্ন ও অনুসন্ধিৎসু মন (শেষ পর্ব) মিলিন্দ প্রশ্নের উৎপত্তি কোত্থেকে? মিলিন্দ কে ছিলেন?ধারাবাহিকভাবে পড়ুন শেষ পর্ব ভন্তে আয়ুপাল, তাহা হইলে আপনাদের প্রব্রজ্যা নিরর্থক। বরঞ্চ পূর্বকৃত পাপকর্মের ফলে আপনারা প্রব্রজিত হইয়াছেন ও ধুতাঙ্গ রক্ষা করিয়া থাকেন। ভন্তে আমার মনে হয়, যাহারা একাসনিক ধুতাঙ্গধারী, তাঁহারা নিশ্চয় পূবর্জ ন্মে পর সম্পত্তি চুরি করিয়াছিল, তাহারা অপরের সম্পত্তি লুটিয়াছে, সেই কর্মের ফলে তাহারা একাসনিক পাপ ভোগিতেছে। সময়ে সময়ে তাহাদের ঘর বিছানা কিছুই মিলে…

ধর্ম ও আচার : সুলেখা বড়ুয়া

ধর্ম ও আচার : সুলেখা বড়ুয়া গাছের পাতা গাছ নয়, কিন্তু পাতা ব্যতীত গাছ বাঁচেনা। সেরূপ ধর্মীয় আচারও ধর্ম নয়। আচার ছাড়াও তেমন ধর্মের অস্তিত্ব লোপ পায়। গাছের পাতায় যেমন গাছের সার নেয় তেমন ধর্মীয় আচারের মধ্যেও ধর্মের সার লাভ করা সম্ভব নয়। গাছের সারান্বেষীকে যেমন গাছের সবকিছু বাদ দিয়ে কান্ডে যেতে হয় ধর্মীয় ব্যাপারেও তেমন অসারকে বাদ দিয়ে সারকে গ্রহণ করতে হয়।প্রসিদ্ধ গ্রন্থাগার হতে ছাত্রদের যেমন কেবল নিজের উপযোগী…

মিলিন্দ : প্রশ্ন ও অনুসন্ধিৎসু মন (৩য় পর্ব)

মিলিন্দ : প্রশ্ন ও অনুসন্ধিৎসু মন (৩য় পর্ব) মিলিন্দ প্রশ্নের উৎপত্তি কোত্থেকে? মিলিন্দ কে ছিলেন?ধারাবাহিকভাবে জানতে চাইলে পড়ুন। আজ তৃতীয় পর্বের সূচনা - তৎপর বালক নাগসেন মাতাপিতার নিকটে উপস্থিত হইয়া বলিলেন, মাতঃপিতঃ, এই প্রব্রজিত যাহা জগতে উত্তম মন্ত্র, তাহা জানেন, কিন্তু তাঁহার নিকটে প্রব্রজিত না হইলে মন্ত্র শিক্ষা দিবেন না। আমি তাঁহার নিকটে প্রব্রজিত হইয়া সেই মন্ত্র শিক্ষা করিব।” মাতাপিতা ভাবিলেন, আমাদের পুত্র প্রব্রজিত হইয়াও মন্ত্র শিক্ষা করুক। মন্ত্র শিক্ষার…

আষাঢ়ী পূর্ণিমার তাৎপর্য : চেতনায় বুদ্ধের জীবনদর্শন

আষাঢ়ী পূর্ণিমার তাৎপর্য : চেতনায় বুদ্ধের জীবনদর্শন আষাঢ়ী পূর্ণিমা বৌদ্ধ ধর্মালম্বীদের অন্যতম একটি পবিত্র দিন ও অবিস্মরণীয় তিথি। এ পূণ্যময় তিথিটি বৌদ্ধ জীবনে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ও তাৎপর্যময়। এ তিথিতে বোধিসত্ব সিদ্ধার্থরূপে মাতৃগর্ভে প্রতিসন্ধি গ্রহণ করেন। জরা ও ব্যাধিগ্রস্ত’ মানুষ, শবযাত্রা ও শান্ত সৌম্য সন্ন্যাসী- এ চার দৃশ্য দেখে রাজকুমার সিদ্ধার্থ এ শুভ আষাঢ়ী পূর্ণিমা তিথিতে রাজপ্রাসাদ ছেড়ে গৃহত্যাগ করেন এবং বুদ্ধত্ব লাভের পর মুক্তিকামী সত্যদ্রষ্টা, মহামানব গৌতমবুদ্ধ সারনাথ এর মৃগদাবে…

মিলিন্দ : প্রশ্ন ও অনুসন্ধিৎসু মন (২য় পর্ব)

মিলিন্দ : প্রশ্ন ও অনুসন্ধিৎসু মন (২য় পর্ব)মিলিন্দ প্রশ্নের উৎপত্তি কোত্থেকে? মিলিন্দ কে ছিলেন? ধারাবাহিকভাবে জানতে চাইলে পড়ুন। আজ দ্বিতীয় পর্বের সূচনা ১। দেবগণের সম্মান-সূচক সম্বোধন বাক্য।তখন আয়ুস্মান অশ্বগুপ্ত মহাসেনকে বলিলেন, মারিষ, আমরা দেবমনুষ্যলোক দেখিয়া বলিতেছি, আপনি ব্যতীত মিলিন্দ রাজাকে তর্কে পরাজয় করিয়া বুদ্ধ শাসনের হিত সাধন করিতে আর কাহাকেও দেখিতেছি না। সে কারণে ভিক্ষুসঙ্ঘ আপনাকে অনুরোধ করিতেছেন, হে সৎপুরুষ, মনুষ্যলোকে জন্মগ্রহণ করিয়া দশবল শাসনের শ্রীবৃদ্ধি সাধন করুন। ভিক্ষু-সঙ্ঘের আবেদনে…

প্রকৃত বৌদ্ধ কে?

প্রকৃত বৌদ্ধ কে? বোধি বা প্রজ্ঞা সাধনায় নিরত প্রজ্ঞাবান ব্যক্তিই প্রকৃত বৌদ্ধ। প্রজ্ঞাবান ব্যক্তি কখনোও দু:শীল হতে পারবেন না। যথায় প্রজ্ঞা তথায শীল; যথায় শীল তথায় প্রজ্ঞা।প্রজ্ঞাবানই শীলবান, শীলবানই প্রজ্ঞাবান।শীল এবং প্রজ্ঞার দ্বারাই জগতে শ্রেষ্ঠত্ব লাব হয়। দশবিধ কর্ম সম্পাদন দ্বারাই প্রকৃত বৌদ্ধ হয়।যথা:-১। বুদ্ধ, ধর্ম ও সংঘের শরণাগত হওয়া। সে শরণাগমন জন্মগত বৌদ্ধদের ন্যায় প্রথাগত না হয়ে ত্রিরত্নে জ্ঞান অর্জন জনিত ত্রিরত্নের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা ও ভক্তি যুক্ত হতে…

মহাবোধিদ্রুম

মহাবোধিদ্রুম যে অশ্বত্থ বৃক্ষের নিচে ধ্যানাসীন হয়ে সিদ্ধার্থ বোধিজ্ঞান লাভ করে বুদ্ধ হয়েছিলেন সেই বৃক্ষটি বৌদ্ধ জগতে ‘মহাবোধিদ্রুম’ নামে খ্যাত। বৃক্ষটি বিহারের গয়া জেলার অন্তর্গত নৈরঞ্জনা নদীর পশ্চিম তীরে বনের নিকটে অবস্থিত। কথিত আছে বৈশাখী পুর্ণিমা দিনে সুজাতার পরমান্ন ভোজনের পর সিদ্ধার্থ শালবনে দিবা বিশ্রাম করে অপরাহ্নকালে এই মহীরুহের প্রতি এক প্রকার আন্তরিক প্রবল আকর্ষণ অনুভব করেন এবং ধীরে ধীরে বৃক্ষটির নিকট এগিয়ে যান। তিনি চিন্তা করলেন এই বনষ্পতিই হবে…

কর্ম : কার্যানুরূপ ফল প্রদায়ী নীতি

কর্ম : কার্যানুরূপ ফল প্রদায়ী নীতি আমরা সম্পূর্ণ অস্থিতিশীল এক বিশ্বে বসবাস করছি, আমরা প্রতিনিয়তই মানুষ এবং বিশ্বে বিরাজমান অগণিত সংখ্যক জীবের মধ্যকার ভিন্নতা এবং তাদের বহুবিধ পরিণতি প্রত্যক্ষ করছি। আমরা দেখি একটি শিশু প্রাচুর্যের মাঝে জন্ম নিয়েছে,চমৎকার মানসিক ,নৈতিক এবং শারীরিক গূণাবলীর সমন্বয়ে বেড়ে উঠেছে অন্যদিকে আরেকটি শিশু শোচনীয় দারিদ্র্যের মাঝে অবহেলায় বেড়ে উঠেছে। এখানে একজন মানুষ ধার্মিক এবং পূণ্যবান কিন্তু জীবন তার প্রত্যাশার সম্পূর্ণ বিপরীত, দুর্ভাগ্য তাকে গ্রাস…

মিলিন্দ : প্রশ্ন ও অনুসন্ধিৎসু মন

মিলিন্দ : প্রশ্ন ও অনুসন্ধিৎসু মন মিলিন্দ প্রশ্নের উৎপত্তি কোত্থেকে? মিলিন্দ কে ছিলেন? ধারাবাহিকভাবে জানতে চাইলে পড়ুন। আজ প্রথম পর্বের সূচনা ...পুরাকালে কশ্যপ বুদ্ধের সময় গঙ্গাতীরের নিকটে একটি গৃহে বহুসংখ্যক ভিক্ষু-সঙ্ঘ বাস করিতেন। তথায় শীলবান ভিক্ষুরা প্রত্যুষে উঠিয়া যষ্টি সম্মার্জনী যোগে বিহার প্রাঙ্গনের জঞ্জালরাশি স্তুপীকৃত করিতেন ও সঙ্গে সঙ্গে বুদ্ধগুণ ভাবনা করিতেন। একদা এক ভিক্ষু এক শ্রামণেরকে ডাকিয়া বলিলেন, দেখ ঐ স্তুপীকৃত জঞ্জালরাশি ফেলিয়া দাও। শ্রামণের যেন কথাটি শুনে নাই,…
Nirvana Peace Foundation

নির্বাণা কার্যক্রম
Image
নির্বাণা পিস ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শিশু কিশোরদের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা সম্পন্ন নির্বাণা পিস ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শিশু কিশোরদের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা সম্পন্নশিশু কিশোরদের… ( বিস্তারিত )
Image
নির্বাণা পিস ফাউন্ডেশনের ব্যতিক্রমী আয়োজন নির্বাণা পিস ফাউন্ডেশনের ব্যতিক্রমী আয়োজন শিশু কিশোরদের মধ্যে ধর্মীয় চেতনা… ( বিস্তারিত )
Image
পূর্ব আধারমানিক মানিক বিহারে বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যান ট্রাষ্টের আর্থিক অনুদানের চেক প্রদান পূর্ব আধারমানিক মানিক বিহারে বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যান ট্রাষ্টের আর্থিক অনুদানের… ( বিস্তারিত )
আরও
সংবাদ সমীক্ষা
Image
সাহিত্যিক সাংবাদিক বিমলেন্দু বড়ুয়ার দশম মৃত্যুবার্ষিকী ২২ জানুয়ারি সাহিত্যিক সাংবাদিক বিমলেন্দু বড়ুয়ার দশম মৃত্যুবার্ষিকী ২২… ( বিস্তারিত )
আরও