২৫৬১ বুদ্ধাব্দ ৯ আষাঢ় ১৪২৪ বঙ্গাব্দ শুক্রবার, ২৩ জুন ২০১৭ইংরেজী
বুধবার, 03 ফেব্রুয়ারী 2016 02:25

‎সংস্কার ও ধ্বংস হয়‬ : সুলেখা বড়ুয়া

লিখেছেনঃ সুলেখা বড়ুয়া

‎সংস্কার ও ধ্বংস হয় :‬ সুলেখা বড়ুয়া

"বুদ্ধের মুখ নিশ্রিত বাণী
সংস্কার ও ধ্বংস হয়।"

সংস্কারের পালি অভিধা সংখার, সংস্কার উৎপত্তির জন্য পাপ ও পূণ্য অর্থাৎ অবিদ্যা প্রধান প্রত্যয়, অনেকে অবিদ্যা দ্বারা শুধু পাপ কাজের মাধ্যমে অকুশল সংস্কার সৃষ্টি করে বলে মনে করে, অবিদ্যা দুঃখকে সুখের মুখোশ পরিয়ে পরোক্ষভাবে পুণ্য বা কুশল অকুশল এবং আনেজ্ঞা সংস্কার উৎপাদনে ও সাহায্য করে, সুতারাং এ অজ্ঞতার কারণে অকুশল, কুশল এবং আনেজ্ঞা (নিশ্চল) সংস্কার উৎপন্ন হয়, এ সংস্কার সৃষ্টি বুদ্ধের বিপরীত ধর্ম ।
যেমন অনেক সময় দেখা যায়, কুসংস্কারাচ্ছন্ন বিষয়কে প্রাধান্য দিয়ে ( রোগমুক্তি, উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ তথা সৌভাগ্যের জন্য ) বিভিন্ন দান ও পুজা অর্চনার মাধ্যমে ধর্মীয় কাজ সম্পাদন করা হয়, এই পাপ বা পুণ্য উভয়বিধ কর্মই বুদ্ধের বিপরীত কর্ম ।
বুদ্ধের ভাষায় জন্ম এবং মৃত্যু উভয়ই দুঃখ, এ দু'এর মাঝখানে জরা, ব্যাধি, শোক-সন্তাপ, নৈরাশ্য, ক্ষোভ, অপ্রিয় সংযোগ, প্রিয় বিয়োগ, অলাভ বস্তুর লাভ, লাভ বস্তুর অলাভ ইত্যাদি অনন্ত দুঃখের তরঙ্গ যা কল্পনাতীত ।
এ সমস্ত দুঃখ সৃষ্টির আধিক্ষেত্র কি তা আবিস্কার করতে না পারলে শুধু দুঃখ বহন করতে হবে । এ দুঃখ সৃষ্টি হয় একমাত্র অবিদ্যার কারণে, আর অবিদ্যা হতে সৃষ্টি হয় সংস্কার, অবিদ্যাই পুনঃ জন্মদায়ক সমস্ত দুঃখের মুলে রয়েছে, মূর্খ বা পৃথকজনেরা একমাত্র সংস্কার সৃষ্টি করে ।
একত্রিশ প্রকার লোকভূমিতে যত প্রকার প্রাণী আছে, সমস্ত প্রাণীর শরীরে অগণিত কুশলাকুশল কর্মের বিপাক জমা থাকে । যতক্ষণ পর্যন্ত আর্যত্ব লাভ না করে ঠিক ততক্ষণ পর্যন্ত দুঃখের বোঝা ভারি থাকে, মানুষ ব্যতীত অন্যকোন প্রাণী বিদর্শন ভাবনা আচরণ করে তবে কোন রকমের প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হবে না ।
একমাত্র সৃষ্টির শ্রেষ্ঠ জীব মানুষই শুদ্ধ আচরণ করে বিদর্শন ভাবনায় সৃষ্ট প্রতিক্রিয়া স্মৃতি বা ভাবনার মাধ্যমে নিরোধ করতে সক্ষম । তাই "সংস্কার একমাত্র ধ্বংস হয় বিদর্শন ভাবনার মাধ্যমে ।"
"দুর্লভ মনুষ্য জন্মলাভ সু'দুর্লভ"
সুতারাং এহেন মানবজীবন সার্থকরুপে রুপান্তরিত করতে হলে জীবনের প্রতিটি মুহূর্ত গুরুত্বপূর্ণ, এটা মনে ধারণ করতে হবে ।
তবে আজ থেকে অঙ্গিকার হউক ----
"কোন সংস্কারের জন্ম দেবো না
জমাকৃত সংস্কার ধ্বংস করবো ।"
সংস্কার ধ্বংস ব্যতিত মুক্তি অসম্ভব, যে সংস্কার সমূহের উপশমই পরম সুখ তথা নির্বাণ ।
"নির্বাণোন্মুখ দ্বার
খুলে যাক সবার ।"

সুলেখা বড়ুয়া : সুলেখিকা হিসাবে সুলেখা ইতিমধ্যে পাঠককূলের দৃষ্টি আকর্ষন করতে সমর্থ হয়েছে। সদ্ধর্মপ্রাণ লেখনি, বিন্যাস ও উদার চিন্তাধারা তাঁর লেখার উপজীব্য। বর্তমানে যুক্তরাজ্য প্রবাসী।

Additional Info

  • Image: Image