২৫৬১ বুদ্ধাব্দ ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ রবিবার, ২৮ মে ২০১৭ইংরেজী
মঙ্গলবার, 05 এপ্রিল 2016 03:37

‘রবীন্দ্রজীবনে ও সাহিত্যে চট্টগ্রাম’ গ্রন্থের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে চবি উপাচার্য ।। শিমুল বড়ুয়ার মননশীল লেখনীতে সাহিত্য জগৎ আরো সমৃদ্ধ হবে

লিখেছেনঃ শ্যামল চৌধুরী

‘রবীন্দ্রজীবনে ও সাহিত্যে চট্টগ্রাম’ গ্রন্থের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে চবি উপাচার্য ।। শিমুল বড়ুয়ার মননশীল লেখনীতে সাহিত্য জগৎ আরো সমৃদ্ধ হবে

অধ্যক্ষ শিমুল বড়ুয়া তাঁর মননশীল লেখনীর মাধ্যমে বাংলা সাহিত্য জগতকে সমৃদ্ধ করছেন। ১৯০৫ সালে বঙ্গভঙ্গ হয়। ১৯০৭ সালে রবীন্দ্রনাথ চট্টগ্রামবাসীর আমন্ত্রণে চট্টগ্রাম আসেন। দুইদিন তিনি চট্টগ্রামে অবস্থান করেন। সেই সময়কার চট্টগ্রামবাসীর ধ্যান ধারণা, চিন্তাচেতনাকে ধারণ করেছেন কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। সেই সব দিয়ে তিনি তাঁর সাহিত্যাঙ্গনকে সমৃদ্ধ করেছেন।
গতকাল ফুলকি এ কে খান স্মৃতি মিলনায়তনে গ্রন্থের প্রকাশক অমিতাভ প্রকাশন আয়োজিত শিমুল বড়ুয়া রচিত “রবীন্দ্রজীবনে ও সাহিত্যে চট্টগ্রাম” গ্রন্থের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী এ কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, শিমুল বড়ুয়া রচিত এই গ্রন্থে আমরা রবীন্দ্রনাথের স্মৃতির সুরভি খোঁজার চেষ্টা করছি। শিমুল রবীন্দ্রনাথের বিষয়গুলো তাঁর রচিতগ্রন্থে অত্যন্ত চমকপ্রদভাবে উপস্থাপন করেছেন।
প্রকাশনা অনুষ্ঠানের সভাপতি ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলজির (ইউএসটিসি) উপাচার্য প্রফেসর ডা. প্রভাত চন্দ্র বড়ুয়ার সভাপতিত্বে গ্রন্থের উপরে আলোচনায় অংশ নেন কবি-সাংবাদিক আবুল মোমেন, সরকারি চারুকলা কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রফেসর রীতা দত্ত এবং কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. আহমেদ মওলা। স্বাগত বক্তব্য দেন অমিতাভ প্রকাশনের স্বত্বাধিকারী শ্যামল চৌধুরী। আবৃত্তিশিল্পী প্রবীর দাশ এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অধ্যক্ষ শিমুল বড়ুয়ার জীবনী পাঠ করেন এডভোকেট রিগ্যান বড়ুয়া।

কবি-সাংবাদিক আবুল মোমেন বলেন, শিমুলের বইটি গড়পড়তা ধরনের মামুলি বই নয়। এটি যথার্র্থ একটি গবেষণাধর্মী বই। বইটিতে লেখক শিমুলের নিষ্ঠা-শ্রম ও মেধার পরিচয় প্রকাশ পেয়েছে। বইটি চট্টগ্রামের সাহিত্য সংস্কৃতি চর্চায় ধারাবাহিক ইতিহাস জানার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

ড. আহমেদ মওলা বলেন, লেখকের লেখনীতে উঠে এসেছে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের চট্টগ্রাম নিয়ে ভাবনা, চট্টগ্রামের মনীষীদের সাথে রবীন্দ্রনাথের বিভিন্ন চিঠিপত্র আদান প্রদান, লেখালেখি ও কথোপকথন। অধ্যক্ষ রীতা দত্ত বলেন, একটি প্রবাদ রয়েছে “আগে দর্শনধারী, পরে গুণবিচারি”। বইটির প্রচ্ছদ খুবই চমৎকার ও রুচিশীল। ভিতরের বিষয়বস্তু আরো আকর্ষণীয়। বইটি সংগ্রহে রাখার মত। এই বইয়ের মাধ্যমে রবীন্দ্রনাথ সম্বন্ধে অজানা অধ্যায় আরো জানা ও পরিচয় লাভ সম্ভব হবে। অনুষ্ঠানের শুরুতে উদ্বোধনী সঙ্গীত পরিবেশন করেন ইমন বড়ুয়া। উপস্থিত অতিথিবৃন্দ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন। প্রকাশনা অনুষ্ঠান শেষে ‘আলোকের এই ঝর্ণাধারায়’ শীর্ষক রবীন্দ্র সংগীতসন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হয়।

Additional Info

  • Image: Image